March 5, 2024, 10:17 am

সংবাদ শিরোনাম
শিক্ষক হাজির ২জন শিক্ষার্থীও হাজির ২ জন উলিপুরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন চিলমারীতে এইড-কুমিল্লার ই-কমার্স বিষয়ে সচেতনতা মূলক র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ০৪ সদস্যকে গোপালগঞ্জের সদর থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্রের চরের শিশুদের শিক্ষা উপকরণ দিলো বাফলা পটুয়াখালীতে আগুনে পুড়ে গেছে মাছের আড়তসহ ৬ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। কুয়াকাটায় পালিত বিশ্ব বন্যপ্রানী দিবস পালিত হয়েছে শার্শায় মরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগে কসায়সহ দুজনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত ভোলায় ২২ লক্ষ মানুষের জন্য নেই ব্লাড ব্যাংক সুন্দরগঞ্জে মাদক ব্যবসা অবাধে চলছে নেই কোন প্রতিকার

তিস্তার পানি সংকট মোকাবেলায় প্রতিবেশী দেশগুলোর সহযোগিতা প্রয়োজন: পানি সম্পদমন্ত্রী

তিস্তার পানি সংকট মোকাবেলায় প্রতিবেশী দেশগুলোর সহযোগিতা প্রয়োজন: পানি সম্পদমন্ত্রী

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

শুষ্ক মৌসুমে তিস্তায় পানি থাকে না- এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা। এই পানি সংকট থেকে উদ্ধার পেতে এ অঞ্চলের সব দেশের সহযোগিতা প্রয়োজন। গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) আয়োজিত ‘বাংলাদেশ ডেলটা প্ল্যান-২১০০’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে দেওয়া প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পানি সম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ডেলটা প্ল্যান জাতির অস্তিত্বের সঙ্গে জড়িত। এ প্ল্যান নিয়ে আমাদের সচেতনতা আরো বাড়ানো উচিৎ। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ডেলটা বাংলাদেশ, যার সঙ্গে বিশ্বের কারো তুলনা চলে না। পানি সম্পদমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ভবিষৎ নির্ভর করছে যথাযথ পানি ব্যবস্থাপনার ওপর। কিন্তু এটি ইউরোপ-আমেরিকার প্ল্যানের কৌশলে প্রণয়ন করলে হবে না। এটি এখনকার পরিস্থিতি মেনেই করতে হবে। তিনি বলেন, বিশ্বের কোথাও এত বড় বড় নদী নেই। এখানে বর্ষা মৌসুমে দেশের ব্যাপক অঞ্চল প্লাবিত হয়। বন্যায় আমাদের প্রতিবছর ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়। আবার গ্রীষ্মে দেখা দেয় খরা। এই উভয়মুখী সংকটে বাংলাদেশের মান্ষু অপরিমেয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বাংলাদেশ যখন ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে উপনীত হতে চাচ্ছে, তখন এই সংকট কাটানো জরুরি হয়ে পড়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এই ক্ষতি আরো ভয়াবহ হতে পারে। এই প্ল্যান করার যাবতীয় সামর্থ এখন বাংলাদেশের আছে। কেউ ভাবেনি পদ্মাসেতু হবে, পারমাণবিক কেন্দ্র হবে। কিন্তু এটি এখন বাস্তব। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অর্থপ্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান বলেন, ডেল্টা প্ল্যান বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ পরিকল্পনা। এটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ এই সমস্যা বহুলাংশে কাটিয়ে উঠতে পারে। শতবর্ষ ব্যাপী এই পরিকল্পনা ষাট বছর পরে হলেও শুরু হয়েছে। সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় এটাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আব্দুল মান্নান প্ল্যানটি সাধারণের বোঝার স্বার্থে বাংলায় দেওয়ার প্রস্তাব করেন। গোলটেবিল আলোচনায় আরো বক্ত্য দেন বিআইআইএসএস এর চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমদ এবং মহাপরিচালক মেজর জেনারেল এ কে এম আবদুর রহমান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. শামসুল আলম।

Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর