June 22, 2024, 12:18 am

সংবাদ শিরোনাম
সিসিটিভির আওতায় উলিপুরঃ সম্মানিত নাগরিকদের নিরাপত্তায় পুলিশের এই প্রচেষ্টা সরিষাবাড়ীতে ৪ হাজার ব্যক্তির মাঝে এমপির চাল বিতরণ চিলমারীতে পৈ‌ত্রিক সম্প‌তি নি‌য়ে বি‌রো‌ধের জের ধ‌রে প্রায় ১৪ বছরের পুরোনো কবর ভেঙে ফেলার অভিযোগ গাজীপুর কালিয়াকৈর চান্দ্রায় ঈদ যাত্রার যাত্রীদের দুর্ভোগ কুয়াকাটা সৈকতে ভেসে এসেছে বোতলনোজ প্রজাতির মৃত ডলফিন উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আরসার গান কমান্ডার গ্রেফতার ফরিদপুরের নগরকান্দার চাঞ্চল্যকর “ক্লুলেস ডাকাতি” ঘটনার মূলহোতা দুর্ধর্ষ ডাকাত সর্দার রবিজুল শেখ’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ রংপুরের পীরগঞ্জে ইয়াবা, জুয়ারী,ও ওয়ারেন্টের আসামী সহ ৮জনকে আটক করে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে জনসচেতনতা মূলক আলোচনা সভা জৈন্তাপুরে চিকনাগুল বাজারে অবৈধ পশুর হাট, সরকার হারাচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব

খালেদার মুক্তির জন্য একমাত্র পথ আইনি লড়াই: তথ্যমন্ত্রী

খালেদার মুক্তির জন্য একমাত্র পথ আইনি লড়াই: তথ্যমন্ত্রী

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

বিএনপির নেতাকর্মীদের পরামর্শ দিয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আন্দোলন করে (বিএনপি চেয়ারপারসন) খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। কেবল আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমেই তিনি মুক্তি পেতে পারেন। ইতোমধ্যে কয়েকটি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনও হয়েছে। গতকাল বুধবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিংয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় শীর্ষস্থান অর্জনের সাফল্য উদযাপনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির আন্দোলনের কথা আমরা গত ১০ বছর ধরে শুনছি। প্রতি ঈদের পরে, রমজানের পরে, কোরবানির পরে, বার্ষিক পরীক্ষার পরে, বর্ষার পরে, রোদ একটু কমলে আন্দোলন হবে। এসব শুনতে শুনতে দেশের মানুষের কাছে বিএনপির বক্তব্য হাস্যকর পরিণত হয়েছে এবং সারশূন্য হয়ে গেছে। হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপিকে আমি অনুরোধ জানাবো, আন্দোলনের পথে না হেঁটে এখন খালেদা জিয়াকে আইনি পথে মুক্ত করার জন্য যেন লড়াই করেন। আইনি প্রক্রিয়া সাফল্যও পেয়েছে। কয়েকটি মামলায় জামিনও পেয়েছেন খালেদা জিয়া। আইনি পথই খালেদা জিয়ার একমাত্র মুক্তির পথ। অন্য কোনো পথ নেই। শিক্ষকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা যেন মেধা, মূল্যবোধ, দেশাত্মবোধের সমন্বয় ঘটিয়ে এমন একটি প্রজন্ম তৈরি করি- যারা বাংলাদেশকে পৃথিবীর মানচিত্রে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রত্যেকের জীবনে স্বপ্ন থাকতে হয়। স্বপ্নহীন মানুষ কোনোদিন লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে না। পৃথিবীর সব মানুষ স্বপ্ন দেখলেও সবার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয় না। কারণ সব মানুষ স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি প্রচেষ্টা যুক্ত করে না। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিংয়ের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান বলেন, যারা স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি প্রচেষ্টা যুক্ত করে, তাদের সব স্বপ্ন বাস্তবায়ন না হলেও অনেক স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়। তাই আমি শিক্ষার্থীদের অনুরোধ জানাবো স্বপ্ন দেখতে। সেই স্বপ্ন শুধু পরিবার ও নিজের জন্য নয়। স্বপ্ন দেখতে হবে দেশ ও সমাজের জন্য। এই স্বপ্নের সঙ্গে প্রচেষ্টাকে যুক্ত করতে হবে। ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের একটি বইয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, মানুষের স্বপ্নের সঙ্গে যখন প্রচেষ্টার যুক্ত হয়, তখন ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ফোর্স তৈরি হয়। ইলেক্ট্রিক ফোর্স যেমন অনেক শক্তিশালী, ম্যাগনেটিক ফোর্সও অনেক শক্তিশালী। সেই ফোর্স আপনাকে স্বপ্নের ঠিকানায় পৌঁছে দিতে সাহায্য করে, স্বপ্নের ঠিকানায় নিয়ে যায়। তাই সবার কাছে দেশের জন্য, নিজের জন্য স্বপ্ন দেখার অনুরোধ করবো। শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমরা যেন মেধা, মূল্যবোধ, দেশাত্মবোধের সমন্বয় ঘটিয়ে এমন একটি প্রজন্ম তৈরি করি- যারা বাংলাদেশকে পৃথিবীর মানচিত্রে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে। ড. হাছান বলেন, যোগাযোগের অভাবে আমাদের দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালগুলো আন্তর্জাতিক রেটিংয়ে স্থান করে নিতে পারেনি। বিশ্বের যেসব দেশের বিশ্ববিদ্যালয় রেটিংয়ে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে সেগুলো থেকে আমাদের দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনেক ভালো। আমার কাছে মনে হয়েছে যোগাযোগের অভাবে আমাদের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো জায়গা করে নিতে পারেনি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা পড়ে তাদের টিউশন ফি দিতে হয়। অনেকে দরিদ্র অথচ মেধাবীদের শিক্ষার সুযোগ করে দিয়েছে। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ও বলেছে, এ ব্যাপারে তাদের কর্মসূচি রয়েছে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে আমি অনুরোধ জানাবো, দরিদ্র অথচ মেধাবী শিক্ষার্থীদের যাতে তারা পড়ালেখার ব্যবস্থা করে। এ বিষয়ে যে কর্মসূচি আছে, সেটা যেন আরও সম্প্রসারণ করা হয়। অনুষ্ঠানে ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এম এ হাসেম, উপাচার্য ড. আতিকুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্য দেন। দিন্যব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় আনন্দ শোভাযাত্রা, হিউম্যান ফ্ল্যাগ, আলোচনা সভা, ব্যান্ড শো ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনার আয়োজন করা হয়েছে।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর