February 22, 2024, 12:44 pm

সংবাদ শিরোনাম
ভোলায় ভাষা শহিদের প্রতি পুলিশ সুপারের শ্রদ্ধা নিবেদন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব পীরগঞ্জ উপজেলার দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ৪দিন ব্যাপী বইমেলার উদ্বোধন মাতৃভাষা শহীদের স্মরনে লক্ষ্মীপুরবাসী জগন্নাথপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন চিলমারীতে এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না দেয়ায়, মোবাইল দিয়ে কর্মচারীর মাথা ফাটালেন উখিয়ায় নিখোঁজ জেলের মরদেহ উদ্ধার জমাজমি সংক্রান্ত বিরোধ, পটুয়াখালীতে মাছের ঘেরের বাঁধ কেটে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা, ১০ লাখ টাকার ক্ষতি রংপুরে মোটর মালিক সমিতির নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি, আটক ৩ শিমুলতলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের আত্মহত্যা

লাস ভেগাস হত্যাকাণ্ড: বান্ধবী প্যাডকের পরিকল্পনা ‘টের পাননি’

লাস ভেগাস হত্যাকাণ্ড: বান্ধবী প্যাডকের পরিকল্পনাটের পাননি

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

লাস ভেগাস হত্যাকাণ্ডের সন্দেহভাজন খুনি স্টিভেন প্যাডকের বান্ধবী মারিলু ডেনলি বলেছেন, ‘দয়ালু, যতœশীল, শান্তপ্যাডকের পরিকল্পনা সম্বন্ধে কোনো ধারণাই ছিল না তার।
বুধবার ফিলিপিন্স থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে ডেনলি একথা বলেন বলে খবর বিবিসির।
তার এই মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টা পর পুলিশ বলছে, অবসরপ্রাপ্ত অ্যাকাউন্টেন্ট প্যাডকগোপনে আরেকটি জীবনযাপন করতেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
রুট নাইনটি ওয়ান হারভেস্টকনসার্টে নিকটবর্তী ম্যান্ডালে বে ক্যাসিনোর ৩২ তলা থেকে নির্বিচারে গুলি চালানোর পর আত্মহত্যা না করে প্যাডক পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে থাকতে পারেন বলেও মনে করছে পুলিশ, যদিও বিষয়ে বিস্তারিত বলেনি তারা।
কিন্তু কী কারণে ক্যাসিনোর পাশের উন্মুক্ত চত্বরে গুলি চালিয়ে প্যাডক যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ হত্যাকাটি ঘটিয়েছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
রোববারের ওই ঘটনায় অন্তত ৫৮ জন নিহত এবং ৫০০ বেশি মানুষ আহত হন।
তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে লাস ভেগাসের ক্লার্ক কাউন্টির শেরিফ জোসেফ লম্বার্ডো জানান, হোটেলে রাখা প্যাডকের গাড়ি থেকে তারা আরও বিস্ফোরক উদ্ধার করেছেন, পেয়েছেন প্রায় ১৬শরাউন্ড গুলি।
হত্যাকাণ্ডের কয়েক ঘণ্টা আগেও প্যাডক জুয়া খেলেছিলেন বলে লম্বার্ডো জানিয়েছেন।
সপ্তাহখানেক আগে লাস ভেগাসের অন্য একটি উন্মুক্ত কনসার্ট দেখতে ওই কনসার্টের নিকটবর্তী ওগডেন হোটেলেও বুকিং ছিল প্যাডকের।
তবে কি কারণে প্যাডক এই ব্যাপক সহিংসতা চালিয়েছেন, সঙ্গে আর কেউ ছিল কি না তাএখনো রহস্যবলে মন্তব্য লম্বার্ডোর।
আমরা এখনো বুঝতে পারছি না,” সাংবাদিকদের কাছে সরল স্বীকারোক্তি শেরিফের।
বিবিসি জানিয়েছে, ফিলিপিন্সে ছুটি কাটানো প্যাডকের বান্ধবী ডেনলি স্বেচ্ছায় যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে এসে বুধবার এফবিআইয়ের সঙ্গে কথা বলেন।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানএয়ার ফোর্স ওয়ানম্যান্ডালে বে ক্যাসিনোর পাশ দিয়ে যাচ্ছে, এই ক্যাসিনোর ভাঙা জানালা দুটো দিয়েই গুলি ছুড়েছিলেন প্যাডক। রয়টার্স যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানএয়ার ফোর্স ওয়ানম্যান্ডালে বে ক্যাসিনোর পাশ দিয়ে যাচ্ছে, এই ক্যাসিনোর ভাঙা জানালা দুটো দিয়েই গুলি ছুড়েছিলেন প্যাডক। রয়টার্স প্যাডকেরভয়াবহ বর্ণনাতীত সহিংসতা স্তম্ভিত হয়েছেন বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন তিনি।
ডেনলির আইনজীবীর পড়া ওই বিবৃতিতে বলা হয়, প্যাডক কখনোই এমন কিছু করেননি বা বলেননি  যাতে এই ঘটনার পরিকল্পনা সম্বন্ধে টের পাওয়া যায়।
আমি তাকে ভালোবাসতাম, তার সঙ্গে চমৎকার ভবিষ্যৎ কাটানোরও আশাও ছিল,”বিবৃতিতে বলেছেন ডেনলি।
রোববারের নির্বিচার গুলিবর্ষণের তদন্ত চলাকালে তদন্ত কর্মকর্তারা ডেনলিকেআগ্রহের কেন্দ্রেরাখার কথা জানান; ফিলিপিন্সে ডেনলির খোঁজ মিলেছে এবং তার সঙ্গে যোগাযোগ হওয়ার কথাও বলেন তারা।
এরপরই মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রে ফেরেন প্যাডকের বান্ধবী। ফিলিপিন্সে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে দুই সপ্তাহ আগে প্যাডকই তাকেসস্তা টিকেটধরিয়ে চমকে দিয়েছিল বলে জানান ডেনলি।
ডেনলি ফিলিপিন্সে থাকাকালে সেখানে তার অ্যাকাউন্টে এক লাখ ডলারও পাঠান প্যাডক।বাড়ি কেনার জন্য ওই অর্থ পাঠানো হয়েছেবলে ডেনলিকে জানান।
কৃতজ্ঞ হয়েছিলাম, সত্যি বলতে কি চিন্তিতও হয়ে পড়েছিলাম কিছুটা, এই টাকা পাঠানোর মধ্য দিয়ে সে ছাড়াছাড়ির চিন্তা করছিল কি না ভেবে। সে যে এরকম সহিংসতা ঘটানোর পরিকল্পনা করছে কোনোভাবেই তা বুঝতে পারিনি,” বিবৃতিতে বলেন ডেনলি।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বুধবার লাস ভেগাস এসে বলেন, ভয়াবহ এই হত্যাকাণ্ডে পুরো জাতিই শোকাহত।
বিপদ উপেক্ষা করেও জরুরি বিভাগের যেসব কর্মীরা আহতদের বাঁচাতে গুলির মধ্যে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন তাদের প্রশংসা করেন তিনি।
ভয়াবহতার খাদের মধ্যেও সেসব নারীপুরুষ জীবনকে তুচ্ছ করেছিল তাদের মধ্যে আমরা আশা খুঁজে পাই। রোরবার রাতে বিশ্ব যে সাহসিকতার নজীর দেখেছে তাকে কোনো শব্দ দিয়ে বর্ণনা করা যাবে না। ঘৃণা মৃত্যুকে ভালোবাসা সাহস দিয়ে প্রতিরোধ করেছে আমেরিকা,” বলেন ট্রাম্প।
রোববারের এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা  যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র আইন সংশোধনের বিতর্ক নতুন করে উসকে দিয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।
ন্যাশনাল রাইফেলস অ্যাসোসিয়েশনের সমর্থন পাওয়া ট্রাম্প সবসময়ই বর্তমানের শিথিল আইনের পক্ষে ছিলেন, নির্বাচনী প্রচারের সময়ও তিনি মার্কিন নাগরিকদের অস্ত্র বহনের অধিকারের পক্ষে নিজের অবস্থানের কথা বারবার ব্যক্ত করেছেন।
রোববারের ঘটনার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট আগের অবস্থান থেকে কিছুটা সরে এসেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
মঙ্গলবার ঘূর্ণিঝড়বিধ্বস্ত পুয়ের্তো রিকো সফরে গিয়ে ট্রাম্প বলেন, “খুব সম্ভবত এটা (অস্ত্র আইন) নিয়ে বিতর্ক করার সময় এসেছে।

Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর