February 24, 2024, 6:44 am

সংবাদ শিরোনাম
রাজধানীর ধানমন্ডিতে পুলিশের অভিযানে ২৯০ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার’ এক নারী’সহ গ্রেফতার-২ এবারে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে এলো ৫০ মেট্রিকটন নারিকেল জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন সরিষাবাড়ীতে ফসলের বৃদ্ধিকরণে কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত রংপুরে এসএসসির প্রশ্নপত্র ফাঁস, শিক্ষকের কারাদণ্ড ইসলামপুরে অতি দরিদ্র পরিবারের জীবনযাত্রার মান পরিবর্তনে গ্র্যাজুয়েশন সভা অনুষ্ঠিত উলিপুরে সংবাদ প্রচারের পর দোকান ঘর সরিয়ে নিতে নোটিশ দিলেন সহকারী কমিশনার ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানালেন ডিএমপি কমিশনার গংগাচড়া স্মার্ট প্রেসক্লাবের সভাপতি আজমীর, সাধারণ সম্পাদক সাগর কুড়িগ্রামের উলিপুরে ৬ জুয়াড়ী গ্রেফতার

দুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যাচেষ্টা | পরিবারের ১৩ সদস্যের মৃত্যু

দুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যাচেষ্টা | পরিবারের ১৩ সদস্যের মৃত্যু

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

পাকিস্থানিরা বিশ্বব্যাপী তাদের অদ্ভূত সব কাণ্ড কীর্তির জন্য বিখ্যাত এবং কুখ্যাতও। প্রতিবেশি দেশগুলোতে জঙ্গিবাদে মদদ দেয়া, মাদক উৎপাদন, কবর থেকে লাশ তুলে ধর্ষণ, ভেড়ার সাথে সঙ্গম, প্রতিবেশির বাড়িতে কোরানের পাতা ছিঁড়ে রেখে এসে তাকে ফাঁসানো, জাতীয় বা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সবচেয়ে খারাপ সংবাদগুলোর সাথে পাকিস্থানিদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাবেই।

এবার পাওয়া গেলো আরেক নৃশংসতার সংবাদ। প্রেমিকের সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় স্বামীকে মোটেও পছন্দ ছিল না নববিবাহিতা স্ত্রীর। এ কারণে স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি। তবে সেই পরিকল্পনার একটু ভুলে স্বামী নয়, শ্বশুরবাড়ির ১৩ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

দ্য টেলিগ্রাফ অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল সোমবার পাকিস্থানের পাঞ্জাব প্রদেশের মুজাফফরগড়ে দুধের সঙ্গে বিষ মেশানোর ভয়াবহ ঘটনাটি ঘটে। গ্রেপ্তারকৃত গৃহবধূর নাম আসিয়া।

 

মুজাফফরগড় পুলিশ জানায়, দুই মাস আগে আসিয়ার সঙ্গে মুজাফফরগড়ের আমজাদের বিয়ে হয়। কিন্তু এই বিয়েতে আসিয়ার মত ছিল না। ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিয়ে হওয়ার কারণে প্রেমিকের সঙ্গেও সম্পর্ক টিকিয়ে রেখেছিলেন তিনি। এ কারণে তিনি স্বামী আমজাদকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

গতকাল তিনি সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী দুধের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে দেন। কিন্তু নেশা করে এসে ঘুমিয়ে পড়ায় সে রাতে আমজাদ আর দুধ খাননি। দুধটুকু রান্নাঘরে থেকে গিয়েছিলো। ফেলে দেয়ার কথা মনে ছিলো না আসিয়ার। সেই দুধ দিয়ে লাচ্ছি তৈরি করেছিলেন আসিয়ার শাশুড়ি। শিশুসহ বাড়ির ২৭ জন সদস্য সেই লাচ্ছি খায়। এ কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ে সবাই। এদের মধ্যে ১৩ জনের মৃত্যু হয়। বাকিদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

মুজাফফরগড় জেলার পুলিশ কর্মকর্তা নাজিম আলি বলেন, দুধে মেশানোর জন্য বিষ আসিয়াকে তার প্রেমিক দিয়েছিলেন। এর আগেও একবার এ রকম চেষ্টা করে বাবার বাড়ি পালিয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

পুলিশ জানায়, প্রথমে সবাই ধারণা করেছিলেন যে দুধে টিকটিকি পড়ায় বিষক্রিয়া হয়েছিল। কিন্তু পরে পুলিশ হেফাজতে আসিয়া স্বীকার করেছেন, তিনি স্বামী আমজাদকে হত্যার উদ্দেশ্যেই দুধে বিষ মিশিয়ে দিয়েছিলেন।

Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর