May 22, 2024, 10:39 am

সংবাদ শিরোনাম
পীরগাছায় আনসার দলনেতা আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতিতে ভুক্তভোগীদের ক্ষোভ কক্সবাজারে জোড়া খুনের মামলার আসামী ৬ জন কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে এসে ধরা খেলো রিকশাওয়ালা পটুয়াখালীতে মন্দিরে ডুকে ৩টি প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্বরা পটুয়াখালীতে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিষয়ক সচেতনতামুলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার ৩৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত চিলমারীতে বিধি বহির্ভূতভাবে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন স্থগিতের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন রামু উপজেলা বিএনপির তিন নেতা বহিষ্কার সুন্দরগঞ্জে দিনব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ দিনাজপুরে চতুর্থ পর্যায়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ উপজেলায় প্রতিক বরাদ্দ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

‘সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির’ কারণে হাওরে দরিদ্র মানুষের আয় বেডেছে: ব্রাক

‘সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির’ কারণে হাওরে দরিদ্র মানুষের আয় বেডেছে: ব্রাক

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

 

হাওর এলাকায় নিজেদের পরিচালিত ‘সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির’ কারণে দরিদ্র মানুষের মাথাপিছু আয় নয় শতাংশ বেড়েছে বলে এক গবেষণা জরিপের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ব্র্যাক। গত বুধবার রাজধানীর মহাখালী ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত ‘হাওরে ব্র্যাকের কার্যক্রম ও আকস্মিক বন্যা’ শীর্ষক কর্মশালায় ওই গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। ‘দারিদ্র্য হ্রাস ও প্রতিকূলতা মোকাবেলায় নতুন মডেল: ব্র্যাকের সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির ফলাফল উপস্থাপন’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন ব্র্যাকের গবেষণা ও মূল্যায়ন বিভাগের উন্নয়ন অর্থনীতি ইউনিটের রিসার্চ ফেলো জিন্নাত আরা। এতে বলা হয়, ব্র্যাকের সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির কারণে হাওর এলাকায় দরিদ্র মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে নয় শতাংশ। পাশাপাশি ১৫ থেকে ৬৫ বয়সী নারী ও পুরুষদের আত্মকর্মসংস্থান প্রায় ৬ শতাংশ ও ১০ শতাংশ করে বেড়েছে। এছাড়া চিকিৎসা, শিশু শিক্ষা, খাদ্য ব্যয়, সঞ্চয় প্রবণতা, বিনিয়োগ, জমি ও পোশাক কেনার ক্ষেত্রে নারীদের অবদান আগের চেয়ে ১৪ শতাংশ বেড়েছে। সুবিধাবঞ্চিত হাওরবাসী, চর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের ধারায় সম্পৃক্ত করা ও জীবনযাত্রার মান বাড়ানোর লক্ষ্যে ২০১৩ সালে সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ করে ব্র্যাক। গবেষণায় বলা হয়, সাত হাজার ৭৮৩টি পরিবারের মধ্যে পাঁচ হাজার ১৮৩টি পরিবার সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত ছিল। প্রকল্পের প্রভাব নিয়ে করা এক জরিপে প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্যসেবা নেওয়ার হার যথাক্রমে ৭৭ শতাংশ ও ৫০ শতাংশ বেড়েছে দেখা যায়। অন্যদিকে প্রকল্পে অন্তর্ভুক্তদের মধ্যে ৬৩ শতাংশের খাদ্য নিরাপত্তা ছিল, অন্যদিকে যারা এই সুবিধা পাননি তাদের ক্ষেত্রে খাদ্য নিরাপত্তা ছিল ৪৬ শতাংশ। এতে বলা হয়, প্রকল্পের সুবিধার বাইরে যেখানে নারীদের আত্মকর্মসংস্থান ছিল ৯৩ দশমিক ২ শতাংশ, সেখানে প্রকল্পভুক্তদের আত্মকর্মসংস্থান হয়েছে ৯৫ দশমিক ২ শতাংশ। পুরুষদের ক্ষেত্রে এর হার ৬৪ দশমিক ৮ শতাংশ এবং ৭১ দশমিক ২ শতাংশ। ব্র্যাকের সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচি আয়োজিত কর্মশালার উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। এতে সভাপতির বক্তব্যে ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক মুহাম্মাদ মুসা বলেন, এবারের বন্যায় হাওরবাসীর শুধু ফসল নয়, বরং জীবনযাত্রাও অনেকটা পাল্টে দিয়েছে। তাই সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচিকে দীর্ঘ সময় চালিয়ে নেওয়ার উপর গুরুত্ব দিচ্ছি। কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে ডেনিশ ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এজেন্সির (ডানিডা) হেড অফ কো-অপারেশন পিটার বগ জেনসেন, ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ডিএফআইডি) বাংলাদেশের উন্নয়ন ফলাফল ও মূল্যায়ন বিভাগের সেক্রেটারি ইউসুফ রফিক, ব্র্যাকের গবেষণা ও মূল্যায়ন বিভাগের পরিচালক প্রফেসর আবদুল বায়েস, সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচি ও সামাজিক ক্ষমতায়ন ও জেন্ডার জাস্টিস অ্যান্ড ডাইভারসিটি কর্মসূচির পরিচালক আন্না মিনজ উপস্থিত ছিলেন।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর