May 26, 2024, 4:51 am

সংবাদ শিরোনাম
মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রসক্লাব’র কমিটি গঠিত প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনা, বাগাতি পাড়ার ভূমিহীন রাবেয়া বেগমের জৈন্তাপুরে ৫১০ বোতল ফেনসিডিল সহ এক নারী আটক পটুয়াখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু এন এস আই পরিচয় দিয়ে এন এস আই এ চাকরির মিথ্যা প্রলোভনে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ আটক দুই পটুয়াখালীতে প্রতিমা ভাঙচুর ও স্বর্ণের চোখ চুরি মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার আদমদীঘিতে হেলমেট নেই, জ্বালানি নেই কার্যক্রম শুরু কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত থেকে অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার

সাইবার হামলা থেকে নিরাপদ নয় কেউ

সাইবার হামলা থেকে নিরাপদ নয় কেউ

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

সাইবার হামলা থেকে কোনো ব্যক্তিই নিরাপদ নয় বলে মনে করেন গুগলের নিরাপত্তা দলের প্রতিষ্ঠাতা হিদার অ্যাডকিনস।

১৫ বছর ধরে গুগল সিস্টেমকে সুরক্ষা দিয়ে আসছেন অ্যাডকিনস। বর্তমানে তিনি গুগলের তথ্য সুরক্ষা এবং গোপনীয়তা বিভাগের পরিচালক। সোমবার টেকক্রাঞ্চ ডিসরাপ্ট ২০১৭ শীর্ষক এক সম্মেলনে তিনি বলেন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক সফটওয়্যারগুলোও মানুষকে ইন্টারনেটে সুরক্ষা দিতে পারছে না।

অনলাইন যোগাযোগের ক্ষেত্রে গ্রাহককে সংবেদনশীল ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার না করার পরামর্শ দিয়েছেন অ্যাডকিনস, বলা হয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি’র প্রতিবেদনে।

সম্মেলনে কয়েক হাজার মানুষকে অ্যাডকিনস বলেন, আমি আমার স্বামীর সব প্রেমপত্র মুছে ফেলি। ব্যক্তিগত তথ্যের মতো কিছু জিনিস ইমেইলে রাখা উচিত নয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

যে কোনো সময় যে কারও সঙ্গে নেটওয়ার্ক হামলা হতে পারে, যোগ করেন তিনি।

সম্প্রতি গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, একশ’ কোটির বেশি গ্রাহক তাদের জিমেইল প্রোগ্রাম ব্যবহার করেন।

ক্রেডিট নজরদারি প্রতিষ্ঠান ইকুইফ্যাক্স-এ এখন পর্যন্ত চালানো সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার ঘটনার পর বিষয়টি নিয়ে সতর্ক করেন অ্যাডকিনস। তিনি বলেন এআইভিত্তিক নিরাপত্তা সফটওয়্যারগুলো ৭০ দশকের হামলাও ঠেকাতে পারে না, সাম্প্রতিক হামলাগুলো তো দূরের কথা। তিনি বলেন, কৌশল পরিবর্তন হয়নি। আমরা এ ধরনের হামলা সম্পর্কে অনেক আগে থেকেই জানি। সাইবার হামলা চালানোর জন্য এআই অনেক ভালো। কিন্তু সাইবার হামলা ঠেকানোর জন্য এআই অন্যান্য পদ্ধতির চেয়ে ভালো- এমনটি মনে করার কোনো কারণ নেই। কারণ এআই এমন অনেক ভরসা যোগায় যা বাস্তব নয়। অপ্রচলিত আচরণ চেনার জন্য এআই ভালো কিন্তু সমস্যা হলো এআই আপনাকে আরও ৯৯টি অপ্রচলিত বিষয় যাচাই করে দেখতে বলবে যেগুলো আসলে কোনো ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় নয়। নিরাপত্তার ক্ষেত্রে এআই ব্যবহার করার সমস্যা হলো কোনটা ভালো কোনটা খারাপ তা জানতে এতে ফিডব্যাক দরকার হয়। কিন্তু আমরা আসলে নিশ্চিত নই কোনটা ভালো আর কোনটা খারাপ, বিশেষ করে ভাইরাসযুক্ত প্রোগ্রামগুলো যখন তাদের আসল প্রকৃতি গোপন করে। এ নিয়ে পরামর্শ দিতে বলা হলে অ্যাডকিনস বলেন, বেশি মেধা ও কম প্রযুক্তি ব্যবহার করুন। কিছু কনিষ্ঠ প্রকৌশলীকে বেতন দিন এবং তাদেরকে দিয়ে অন্য কিছু না করিয়ে শুধু নিরাপত্তা প্যাচ তৈরি করান।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর