May 30, 2024, 8:14 pm

সংবাদ শিরোনাম
রংপুর সিটির তিন মাথায় নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু, ইউপি চেয়ারম্যান ও ভবন মালিকের যোগসাজসে গোপনে লাশ দাফন আদমদীঘির ধান শরিয়তপুরে উদ্ধার; গ্রেপ্তার-২ অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনকালে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা হতে ০৬ জন পরিবহন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান এলাকা হতে গাঁজা ও বিদেশী পিস্তলসহ কুখ্যাত অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী সাগর’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কায় চালকের মৃত্যু ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর প্রভাবে উপকুলের সতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত কুড়িগ্রামে বেবী তরমুজের চাষে তিন মাসে আয় দেড় লাখ টাকা মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রেসক্লাব’র কমিটি গঠিত

রাজধানীতে এক রাতে ৫৬ ছিনতাইকারী আটক

রাজধানীতে এক রাতে ৫৬ ছিনতাইকারী আটক

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

একের পর এক ছিনতাইয়ের ঘটনার মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এক রাতে ৫৬ জন ছিনতাইকারীকে আটকের কথা জানিয়েছে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান জানান, গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে অভিযান চালিয়ে ওই ৫৬ জনকে তারা গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারদের কাছ থেকে ছুরি, চায়নিজ কুড়ালসহ বেশ কিছু ধারালো অস্ত্রও উদ্ধার করার কথা বলেছেন তিনি। রাজধানীতে ছোঁ মেরে ব্যাগ, মোবাইলসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত এরা ‘টানা পার্টি’র সদস্য। এদের ৯৮ শতাংশ সদস্য মাদকাসক্ত। তাদের কোনো সংঘবদ্ধ চক্র নেই, এলাকাভেদে কয়েকজন মিলে এ ধরনের অপরাধমূলক কাজ করে এ পার্টির সদস্যরা। গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের যুগ্ম-কমিশনার আবদুল বাতেন এসব কথা বলেন। এর আগে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতভর রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫৬ ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়। তাদের বিষয়ে জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ডিবি পুলিশ। আব্দুল বাতেন বলেন, বিগত কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায় ঢাকায় ছিনতাইয়ের প্রবণতা বেড়েছে। এটাকে আমরা পজিটিভলি নিয়েছি এবং ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে তৎপরতা বাড়াতে ডিএমপির সব বিভাগের সমন্বয়ে গত বৃহস্পতিবার একটি বৈঠক করি। সাধারণত সংঘবদ্ধ ছিনতাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় ডিবি। কিন্তু বৈঠকের পর আমরা ছিঁচকে চোর, টানা পার্টির বিরুদ্ধেও অভিযান চালাই। অভিযানে ৫৬ ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, যেসব এলাকায় টানাপার্টি বা ছিনতাইকারী বেশি সক্রিয় সেসব স্পটগুলো চিহ্নিত করতে পেরেছি আমরা। এসব স্পটে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। ‘টানা পার্টি’র সদস্যদের কোনো গডফাদার নেই জানিয়ে ডিবির যুগ্ম-কমিশনার বলেন, এরা সাধারণত মাদকসেবী। মাদকের টাকা যোগাড় করতেই নানা ধরনের ছিনতাই করে থাকে তারা। টানা পার্টির ৯৮ শতাংশ সদস্যই মাদকসেবী। ছিনতাইয়ের হার বেড়ে যাওয়ার কারণ প্রসঙ্গে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, একেক সময় ক্রাইমের ধরণ একই ট্রেন্ডের থাকে। এর নির্দিষ্ট কোনো কারণ নেই। মাদক বেড়ে যাওয়ায় ছিনতাই বেড়েছে কিনা-এমন প্রশ্নের উত্তরে আবদুল বাতেন বলেন, এটা রিসার্চের ব্যাপার। ঠিক এই কারলে বাড়ছে কিনা- এমনিতে বলা সম্ভব নয়। আমরা আশা করছি ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে এই অভিযানে নগরবাসীর মনে স্বস্তি ফিরবে। এ ধরনের অপরাধীদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে, যোগ করেন ডিবির ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর