May 28, 2024, 7:18 pm

সংবাদ শিরোনাম
আদমদীঘির ধান শরিয়তপুরে উদ্ধার; গ্রেপ্তার-২ অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনকালে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা হতে ০৬ জন পরিবহন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান এলাকা হতে গাঁজা ও বিদেশী পিস্তলসহ কুখ্যাত অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী সাগর’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কায় চালকের মৃত্যু ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর প্রভাবে উপকুলের সতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত কুড়িগ্রামে বেবী তরমুজের চাষে তিন মাসে আয় দেড় লাখ টাকা মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রেসক্লাব’র কমিটি গঠিত প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনা, বাগাতি পাড়ার ভূমিহীন রাবেয়া বেগমের

পূজার ছুটিতে বাড়িতে গিয়ে ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মৃত্যু কিশোরের

পূজার ছুটিতে বাড়িতে গিয়ে ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মৃত্যু কিশোরের

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

 
পূজার ছুটিতে বাড়িতে গিয়ে ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মৃত্যু কিশোরের
শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় পুলিশের নির্যাতনে বিশ্বজিৎ দেব দে (১৮) নামে এক কিশোরের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সকাল থেকে এই অভিযোগে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী কিশোরের মরদেহ নিয়ে রাজপথে টায়ার জ্বালিয়ে কয়েক ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে। এ সময় সহকারী পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ইটপাটকেল ছুঁড়ে ভাঙচুর করা হয়।
পুলিশ জানায়, রবিবার সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে নালিতাবাড়ী পৌরশহরের উত্তর বাজার জনৈক রুহুলের চায়ের দোকান এলাকা থেকে বিশ্বজিেক ৬০ গ্রাম পুড়িয়ার গাজাসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এরপর রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয় নেতৃবৃন্দর সুপারিশে পরিবারের লোকজনের কাছে মুছলেকা দিয়ে বিশ্বজিেক ছেড়ে দেয়া হয়। থানা থেকে বিশ্বজিেক বাসায় নেয়ার পর তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে সদর হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও বিশ্বজিতের বোন শিউলীর অভিযোগ, বিশ্বজিত্ শান্ত স্বভাবের ছেলে। সে কখনো নেশা করে না। পুলিশ অন্যায়ভাবে বিশ্বজিত্ ধরে নিয়ে নির্যাতন করে মেরে ফেলেছে। আমরা এর বিচার চাই। দূর্গাপূজা উপলক্ষে ছুটিতে বাড়ি এসেছিলেন পৌরশহরের কাচিপাড়ার মৃত বিধান সরকারের ছেলে বিশ্বজিত্। তিনি ঢাকায় একটি সিগারেট কোম্পানিতে কাজ করতেন। রবিবার সন্ধ্যার সময় পুলিশের দুই এএসআই বিশ্বজিেক আটক করলেও তার কাছে কোনো গাজা পায়নি। বিশ্বজিতের পরিবার এতোটাই অসচ্ছল যে, তাদের মাথা গোজার ঠাইটুকু নেই। অন্যের বাড়িতে আশ্রিত।
এ বিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ওসি ফসিহুর রহমান বলেন, যুবক বিশ্বজিত্ কে ৫০-৬০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয়। পরে রবিবার রাত ১০টার দিকে পরিবারের পক্ষ থেকে মুচলেকা নিয়ে ছাড়িয়ে দেয়া হয়। ওই সময় সে পুরোপুরি সুস্থ ছিল। তাকে কোনো প্রকার জিজ্ঞাসাবাদ ও নির্যাতন করা হয়নি।
সহকারী পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর