February 22, 2024, 6:16 pm

সংবাদ শিরোনাম
ভোলায় ভাষা শহিদের প্রতি পুলিশ সুপারের শ্রদ্ধা নিবেদন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব পীরগঞ্জ উপজেলার দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ৪দিন ব্যাপী বইমেলার উদ্বোধন মাতৃভাষা শহীদের স্মরনে লক্ষ্মীপুরবাসী জগন্নাথপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন চিলমারীতে এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না দেয়ায়, মোবাইল দিয়ে কর্মচারীর মাথা ফাটালেন উখিয়ায় নিখোঁজ জেলের মরদেহ উদ্ধার জমাজমি সংক্রান্ত বিরোধ, পটুয়াখালীতে মাছের ঘেরের বাঁধ কেটে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা, ১০ লাখ টাকার ক্ষতি রংপুরে মোটর মালিক সমিতির নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি, আটক ৩ শিমুলতলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের আত্মহত্যা

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে গাড়ি আটকিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে গাড়ি আটকিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি রেঞ্জের সাতগড় বনবিট ও চুনতী অভয়ারণ্য বনবিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মহাসড়কে চলাচলরত বাঁশ ও কাঠের গাড়ি আটকিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।

কাঠ ব্যবসায়ীরা বলেন, পার্বত্য বান্দরবানের আজিজ নগর ও কেঁয়াজুপাড়া এলাকায় ব্যক্তি মালিকানাধীন বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বাগান কেনেন ব্যবসায়ীরা। পরবর্তী সময়ে সেই বাগান থেকে গাছ কেটে আজিজ নগর স্টেশন দিয়ে বিভিন্ন করাতকলে নিয়ে যাওয়া হয়। নেয়ার সময় আজিজ নগর স্টেশন ও আশপাশ এলাকায় সাতগড় বনবিট কর্মকর্তা ও বনপ্রহরীরা অবস্থান নিয়ে কাঠের গাড়ি আটকে দেন। এরপর ২০০টাকা থেকে শুরু করে ২০০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায়ের পর কাঠ বোঝাই গাড়ি ছেড়ে দেন বলে অভিযোগ করেন কাঠ ব্যবসায়ীরা।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পার্বত্য অঞ্চলের আজিজ নগর ও কাপ্তাই থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক হয়ে বাঁশের গাড়ি যায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে। সেখানে মিয়ানমারের শরণার্থীরা বসতঘর তৈরিতে সেই বাঁশ ব্যবহার করেন। কিন্তু বাঁশ বোঝাই গাড়ি লোহাগাড়া চুনতি রেঞ্জের আওতাধীন সাতগড় বনবিট এলাকায় পৌঁছালে আটকে দেন বনকর্মীরা। এরপর ৮০০টাকা থেকে ১০০০ টাকা আদায়ের পর ছেড়ে দেন। টাকা দিতে না চাইলে বিভিন্নভাবে হয়রানি করেন।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুই প্রত্যক্ষদর্শী কাঠ ব্যবসায়ী জানান, গতমঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার সময় কাপ্তাই থেকে উখিয়াগামী একটি বাঁশবোঝাই ট্রাক হারবাং চৌধুরী জসিম ফিলিং স্টেশনের সামনে পৌঁছালে থামার সংকেত দেন; সাতগড় বনবিট কর্মকর্তা ও বনপ্রহরী জসিম উদ্দিন। ট্রাকটি ফিলিং স্টেশনের পাশে সাইড করে দাঁড় করিয়ে ১২০০ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ট্রাকটি বনবিটে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন। একপর্যায়ে ৮০০টাকা দিয়ে ট্রাকটি ছাড়া পায়। এ ছাড়া চুনতি অভয় অরণ্যের বনবিট র্কমর্কতা প্রহরীদের নিয়ে মহাসড়কে কাঠ ও বাঁশ বোঝাই গাড়ি আটকিয়ে টাকা আদায় করে গাড়ি ছেড়ে দেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর