July 13, 2024, 1:32 pm

সংবাদ শিরোনাম
রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা হতে জাল সার্টিফিকেট ও জাল সার্টিফিকেট তৈরীর সরঞ্জামাদিসহ ০২ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ র‌্যাব-১০ এর অভিযানে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং এলাকা হতে ইয়াবাসহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কক্সবাজারে ভারী বৃষ্টিপাত পাহাড় ধ্বসে নারী-শিশু নিহত পীরগঞ্জে মসজিদের দোহাই সরকারি খাস জমির গাছ কর্তন পার্বতীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক হোসেন এর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন দারুসসালাম লাফনাউট মাদ্রাসার দস্তারবন্দী নিবন্ধন ফরম বিতরণ শুরু পীরগঞ্জে নিখোঁজের একদিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার মাদক মামলায় ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত দীর্ঘদিন পলাতক আসামী আলাউদ্দিন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ যশোরের মুজিব সড়ক থেকে উদ্ধার হওয়া মরদেহ ঝিকরগাছার আখির মোবাইলে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ডিলিট না করায় কক্সবাজারে বন্ধুকে হত্যা

মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে অভিনন্দন দ.কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের

মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে অভিনন্দন দ.কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

 

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন গতকাল মঙ্গলবার তার দেশে মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ব্যক্তিগতভাবে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এর মধ্যদিয়ে দেশটিতে মার্কিন এ নেতার দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শুরু হলো। খবর সিনহুয়ার।

বারো দিনের এশিয়া সফরের দ্বিতীয় ধাপে ট্রাম্প দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলের উপকণ্ঠে ওসান বিমান ঘাঁটিতে দুপুরের দিকে অবতরণ করেন। সেখানে দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিউং-হোয়া তাকে শুভেচ্ছা জানান।

পরে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে তিনি সিউলের প্রায় ৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে ক্যাম্প হাম্পরিসে যান। ক্যাম্প হাম্পরিস হচ্ছে পিয়ংতায়েকে নতুন করে সংস্কার করা যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক ঘাঁটি। প্রেসিডেন্ট মুন এ সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে ব্যক্তিগতভাবে অভিনন্দন জানান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এটিকে ট্রাম্পের জন্য একটি ব্যতিক্রমী প্রোটোকল হিসেবে বর্ণনা করেছে। প্রকৃতপক্ষে সিউলে প্রেসিডেন্টের দপ্তর ব্লু হাউজে মার্কিন এ নেতাকে স্বাগত জানানোর পরিকল্পনা রয়েছে মুনের।

ক্যাম্প হাম্পরিসে দক্ষিণ কোরিয়া ও ইউএস ফোর্সেস কোরিয়ার (ইউএসএফকে) সদস্যদের সঙ্গে এ দুই নেতা দুপুরের খাবার খান। ক্যাম্প হাম্পরিসকে বিদেশে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সামরিক ঘাঁটি হিসেবে দেখা হয়।

মার্কিন এ সামরিক ঘাঁটি নির্মাণে ১০.৭ বিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়। এই বিশাল অংকের ব্যয়ের ৯০ শতাংশের বেশী দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার বহন করে বলে জানা যায়।

প্রেসিডেন্ট মুন সামরিক বাহিনীর সদস্যদেরকে বলেন, তারা দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন জোটের ভিত্তি এবং ভবিষ্যত। তিনি কোরীয় উপদ্বীপের শান্তি ও সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠার জন্যে তাদের প্রতি আহবান জানান।

সেখানে কোরীয় উপদ্বীপের নিরাপত্তা পরিস্থিতির ব্যাপারে ট্রাম্পকে অবহিত করা হয়। পরে ট্রাম্প বুø হাউজে মুনের সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে হেলিকপ্টারে করে রওনা হন।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর