May 26, 2024, 4:50 am

সংবাদ শিরোনাম
মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রসক্লাব’র কমিটি গঠিত প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনা, বাগাতি পাড়ার ভূমিহীন রাবেয়া বেগমের জৈন্তাপুরে ৫১০ বোতল ফেনসিডিল সহ এক নারী আটক পটুয়াখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু এন এস আই পরিচয় দিয়ে এন এস আই এ চাকরির মিথ্যা প্রলোভনে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ আটক দুই পটুয়াখালীতে প্রতিমা ভাঙচুর ও স্বর্ণের চোখ চুরি মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার আদমদীঘিতে হেলমেট নেই, জ্বালানি নেই কার্যক্রম শুরু কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত থেকে অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার

মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে অভিনন্দন দ.কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের

মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে অভিনন্দন দ.কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

 

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন গতকাল মঙ্গলবার তার দেশে মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ব্যক্তিগতভাবে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এর মধ্যদিয়ে দেশটিতে মার্কিন এ নেতার দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শুরু হলো। খবর সিনহুয়ার।

বারো দিনের এশিয়া সফরের দ্বিতীয় ধাপে ট্রাম্প দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলের উপকণ্ঠে ওসান বিমান ঘাঁটিতে দুপুরের দিকে অবতরণ করেন। সেখানে দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিউং-হোয়া তাকে শুভেচ্ছা জানান।

পরে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে তিনি সিউলের প্রায় ৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে ক্যাম্প হাম্পরিসে যান। ক্যাম্প হাম্পরিস হচ্ছে পিয়ংতায়েকে নতুন করে সংস্কার করা যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক ঘাঁটি। প্রেসিডেন্ট মুন এ সামরিক ঘাঁটিতে ট্রাম্পকে ব্যক্তিগতভাবে অভিনন্দন জানান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এটিকে ট্রাম্পের জন্য একটি ব্যতিক্রমী প্রোটোকল হিসেবে বর্ণনা করেছে। প্রকৃতপক্ষে সিউলে প্রেসিডেন্টের দপ্তর ব্লু হাউজে মার্কিন এ নেতাকে স্বাগত জানানোর পরিকল্পনা রয়েছে মুনের।

ক্যাম্প হাম্পরিসে দক্ষিণ কোরিয়া ও ইউএস ফোর্সেস কোরিয়ার (ইউএসএফকে) সদস্যদের সঙ্গে এ দুই নেতা দুপুরের খাবার খান। ক্যাম্প হাম্পরিসকে বিদেশে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সামরিক ঘাঁটি হিসেবে দেখা হয়।

মার্কিন এ সামরিক ঘাঁটি নির্মাণে ১০.৭ বিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়। এই বিশাল অংকের ব্যয়ের ৯০ শতাংশের বেশী দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার বহন করে বলে জানা যায়।

প্রেসিডেন্ট মুন সামরিক বাহিনীর সদস্যদেরকে বলেন, তারা দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন জোটের ভিত্তি এবং ভবিষ্যত। তিনি কোরীয় উপদ্বীপের শান্তি ও সমৃদ্ধি প্রতিষ্ঠার জন্যে তাদের প্রতি আহবান জানান।

সেখানে কোরীয় উপদ্বীপের নিরাপত্তা পরিস্থিতির ব্যাপারে ট্রাম্পকে অবহিত করা হয়। পরে ট্রাম্প বুø হাউজে মুনের সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে হেলিকপ্টারে করে রওনা হন।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর