May 22, 2024, 11:51 am

সংবাদ শিরোনাম
পীরগাছায় আনসার দলনেতা আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতিতে ভুক্তভোগীদের ক্ষোভ কক্সবাজারে জোড়া খুনের মামলার আসামী ৬ জন কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে এসে ধরা খেলো রিকশাওয়ালা পটুয়াখালীতে মন্দিরে ডুকে ৩টি প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্বরা পটুয়াখালীতে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিষয়ক সচেতনতামুলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার ৩৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত চিলমারীতে বিধি বহির্ভূতভাবে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন স্থগিতের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন রামু উপজেলা বিএনপির তিন নেতা বহিষ্কার সুন্দরগঞ্জে দিনব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ দিনাজপুরে চতুর্থ পর্যায়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ উপজেলায় প্রতিক বরাদ্দ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

রাজধানীতে আবারও জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের মধ্যে মারামারি, স্কুলছাত্র খুন

রাজধানীতে আবারও জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের মধ্যে মারামারি, স্কুলছাত্র খুন

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

রাজধানীর উত্তরা ও নাখালপাড়ার পর এবার চকবাজার থানা এলাকায় জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের দ্বন্দ্বে ছুরিকাঘাতে মো. হাসান (১৬) নামের এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার ভোররাত ৪টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসানের মৃত্যু হয়। এর আগে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চকবাজার থানাধীন চাঁদনীঘাট এলাকায় স্থানীয় জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের মধ্যে মারামারি হয়। এ সময় কয়েকজন হাসানকে মারধর করে। এর একপর্যায়ে একজন তার পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে গুরুতর আহত হয় হাসান। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে দ্রুত ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ছুরিকাঘাতে নিহত হাসান এ বছর জেএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। গত শুক্রবার চাঁদনীঘাট এলাকার শিশু হাসপাতালের গলিতে জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের তর্কাতর্কিকে কেন্দ্র করে তার ওপর হামলা হয়। হাসানের বাবা মোহাম্মদ আলী জানান, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে তিনি লালবাগ এলাকার পোস্তায় থাকেন। কয়েকজন ছেলে মিলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাঁর ছেলেকে মারধর করে পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তিনি শুনেছেন যে, জ্যেষ্ঠ ও কনিষ্ঠদের মধ্যে দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। মোহাম্মদ আলী আরো জানান, মারামারির সময় কয়েকজন মিলে তাঁর ছেলের পেটে ছুরি ঢুকিয়ে দেয়। চকবাজার থানার এসআই মো. জামাল জানান, সকাল ৯টার দিকে হাসানের বাবা থানায় এসে অভিযোগ করেছেন। এরপর থানা থেকে পুলিশের একটি দল ঢামেক হাসপাতালে গিয়েছে। লাশ এখনো ঢামেকেই রাখা আছে। চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি সন্ধ্যায় উত্তরায় সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বের জেরে স্কুলছাত্র আদনান কবিরকে (১৫) ১৩ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডে কয়েকজন যুবক কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। পরে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই দিন রাতেই আদনানের বাবা কবির হোসেন বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় হত্যা মামলা করেন। আদনান হত্যার পর তেজগাঁওয়ে এ ধরনের একটি ঘটনায় এক কিশোর নিহত হয়।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর