May 22, 2024, 11:33 am

সংবাদ শিরোনাম
পীরগাছায় আনসার দলনেতা আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতিতে ভুক্তভোগীদের ক্ষোভ কক্সবাজারে জোড়া খুনের মামলার আসামী ৬ জন কুড়িগ্রামে জাল ভোট দিতে এসে ধরা খেলো রিকশাওয়ালা পটুয়াখালীতে মন্দিরে ডুকে ৩টি প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্বরা পটুয়াখালীতে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিষয়ক সচেতনতামুলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার ৩৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত চিলমারীতে বিধি বহির্ভূতভাবে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন স্থগিতের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন রামু উপজেলা বিএনপির তিন নেতা বহিষ্কার সুন্দরগঞ্জে দিনব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ দিনাজপুরে চতুর্থ পর্যায়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ উপজেলায় প্রতিক বরাদ্দ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

কক্সবাজারে গ্রেফতার ৭ ডিবি সদস্য কারাগারে

কক্সবাজারে গ্রেফতার ৭ ডিবি সদস্য কারাগারে

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক 

 কক্সবাজারে ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে ১৭ লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া গোয়েন্দা ইউনিটের সাত সদস্যকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার কক্সবাজারের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মোশাররফ হোসেন এই আদেশ দিয়েছেন। গ্রেফতার হওয়া সাতজনের জামিনের আবেদন জানানো হয়েছিল। শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কক্সবাজার জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.আফরুজুল হক টুটুল। গ্রেফতার সাতজনের বিরুদ্ধে কক্সবাজারের টেকনাফ থানায় অপহরণ ও চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেছেন মুক্তিপণ দিয়ে ছাড়া পাওয়া ব্যবসায়ী গফুর আলম। গত বুধবার ভোরে টেকনাফ উপজেলার মেরিন ড্রাইভ সড়কের শাপলাপুর এলাকায় একটি মাইক্রোবাসে তল্লাশি চালিয়ে মুক্তিপণের ১৭ লাখ টাকাসহ ছয়জনকে আটক করে সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মেরিন ড্রাইভ সড়কের বিভিন্ন এলাকায় স্থাপিত সেনাচৌকিতে তল্লাশির মুখে পড়েছিল মাইক্রোবাসটি। আটক ছয়জন হলেন কক্সবাজারের জেলা পুলিশের গোয়েন্দা ইউনিটের এসআই আবুল কালাম আজাদ, গোলাম মোস্তফা, এএসআই ফিরোজ আহমদ, নুরুজামান, আলাউদ্দিন এবং সিপাহী মোস্তফা আলম। সেনাবাহিনীর তল্লাশির সময় পালিয়ে যাওয়া এসআই মনিরুজ্জামানকে পরে পুলিশ আটক করে। আটকের পর তাদের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেন পুলিশ সুপার ড. এ কে এম ইকবাল হোসেন। গফুর আলম নামে এক ব্যবসায়ীকে মঙ্গলবার দুপুরে কক্সবাজার শহর থেকে আটকের পর রাতভর টেকনাফে নিজেদের হেফাজতে রেখে ১৭ লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায় করে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেই টাকা নিয়ে ফেরার পথে সেনাচৌকিতে তল্লাশির মুখে পড়েন পুলিশ সদস্যরা।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর