June 16, 2024, 5:29 pm

সংবাদ শিরোনাম
সিসিটিভির আওতায় উলিপুরঃ সম্মানিত নাগরিকদের নিরাপত্তায় পুলিশের এই প্রচেষ্টা সরিষাবাড়ীতে ৪ হাজার ব্যক্তির মাঝে এমপির চাল বিতরণ চিলমারীতে পৈ‌ত্রিক সম্প‌তি নি‌য়ে বি‌রো‌ধের জের ধ‌রে প্রায় ১৪ বছরের পুরোনো কবর ভেঙে ফেলার অভিযোগ গাজীপুর কালিয়াকৈর চান্দ্রায় ঈদ যাত্রার যাত্রীদের দুর্ভোগ কুয়াকাটা সৈকতে ভেসে এসেছে বোতলনোজ প্রজাতির মৃত ডলফিন উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আরসার গান কমান্ডার গ্রেফতার ফরিদপুরের নগরকান্দার চাঞ্চল্যকর “ক্লুলেস ডাকাতি” ঘটনার মূলহোতা দুর্ধর্ষ ডাকাত সর্দার রবিজুল শেখ’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ রংপুরের পীরগঞ্জে ইয়াবা, জুয়ারী,ও ওয়ারেন্টের আসামী সহ ৮জনকে আটক করে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে জনসচেতনতা মূলক আলোচনা সভা জৈন্তাপুরে চিকনাগুল বাজারে অবৈধ পশুর হাট, সরকার হারাচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব

পরীক্ষা দিতে পারেনি ৫ম শ্রেণির পরীক্ষার্থী

জিতেন চন্দ্র দাস,রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে প্রশ্নপত্রের অভাবে ৫ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী পরীক্ষার্থী দিতে পারেনি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ জন্য ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের গাফলতিকে দায়ি করছেন ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবক। বৃহস্পতিবার উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের পারেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এঘটনা ঘটে।
সরেজমিনে বিদ্যালয় গিয়ে জানাযায়, (২৯ আগস্ট) বৃহস্পতিবার ৫ম শ্রেণির ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বিষয়ে পরীক্ষা ছিল। ওই শ্রেণিতে ২৬ জন পরিক্ষার্থীর মধ্যে ২৩ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে আসে। এর মধ্যে স্মৃতি খাতুন, রোল নং ২১কে প্রশ্নপত্র পায়নি। এসময় স্মৃতি খাতুন সাংবাদিকদের জানায়, ‘আমাকে পরিক্ষার খাতা দিয়ে ছিল; কিন্তু প্রশ্ন দেওয়া হয়নি। ম্যাডামের কাছে প্রশ্ন চেয়েও পাইনি। পরে বাড়িতে গিয়ে আমার মাকে জানাই। আমি প্রশ্নপত্রের অভাবে পরিক্ষা দিতে পারিনি এর বিচার চাই।’বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমতাজ বেগমকে বিদ্যালয়ে খুজে পাওয়া যায়নি। সহকারী শিক্ষকগণ বলেন, ওনি ব্যাংকের কাজে রৌমারীতে গেছেন।এবিষয়ে মুঠোফোনে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমতাজ বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, প্রশ্নপত্রের বান্ডেলে বিদ্যালয়ের নাম লিখে রাখেন স্যারেরা (টিও, এটিও)। সেখানে একটি প্রশ্ন কম ছিল। এছাড়া পরিক্ষার সময় আমি উপস্থিত ছিলাম না। প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়ে (এটিও) নাজমুল স্যার ফোন করে ছিলেন, তাছাড়া ব্যাংকে আমার কাজ ছিল।এব্যাপারে উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিও) নাজমুল হকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, প্রশ্নপত্রের বান্ডেল করে রাখা হয়;কিন্তু প্রধান শিক্ষক তা গুণে নিবে। গুণে না নেওয়া প্রধান শিক্ষকের গাফলতি। বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তিনি আমাকে কিছুই জানায়নি। যদি ওনি বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন তাহলে রোববারে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের অফিসে গিয়ে তাকে না পেয়ে মুঠোফোন ০১৯৭৫১৯২৯৯৭ এ নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

প্রাইভেট ডিটেকটিভ/৩০ আগস্ট ২০১৯/ইকবাল

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর