May 28, 2024, 7:00 pm

সংবাদ শিরোনাম
আদমদীঘির ধান শরিয়তপুরে উদ্ধার; গ্রেপ্তার-২ অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনকালে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা হতে ০৬ জন পরিবহন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান এলাকা হতে গাঁজা ও বিদেশী পিস্তলসহ কুখ্যাত অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী সাগর’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কায় চালকের মৃত্যু ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর প্রভাবে উপকুলের সতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত কুড়িগ্রামে বেবী তরমুজের চাষে তিন মাসে আয় দেড় লাখ টাকা মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রেসক্লাব’র কমিটি গঠিত প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনা, বাগাতি পাড়ার ভূমিহীন রাবেয়া বেগমের

গাজীপুরে পোশাক শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ॥ গ্রেফতার ৪

গাজীপুরে পোশাক শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ॥ গ্রেফতার ৪
গাজীপুর প্রতিনিধি


গাজীপুরে এক পোশাক শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এই ঘটনায় ৪ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে জয়দেবপুর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- গোপালগঞ্জের মধুপুর এলাকার আহম্মদ আলী মোল্লার ছেলে মনির হোসেন (৩৪), টাঙ্গাইল সদরের কেশমমাইজার গ্রামের আঃ হালিমের ছেলে কাওসার আলী (২০), গাজীপুর মহানগরীর ইটাহাটা এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে আরব আলী (৩২) ও কুড়িগ্রামের ভুড়িঙ্গামারি এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন (৩০)। বৃহস্পতিবার রাতে মহানগরীর বাইমাইল এলাকায় ওই ধর্ষণের ঘটনটিা ঘটে।
জয়দেবপুর থানার কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন জানান, ভিকটিম মৌচাক তেলিরচালা এলাকায় ভাড়া থেকে একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতো। সম্প্রতি তার চাকরি চলে যায়। ভ্যান চালক স্বামী অসুস্থ থাকায় নতুন চাকরির খুঁজে বৃহস্পতিবার সকালে তিনি চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় তার বোনের বাড়িতে আসেন।
রাত ১০টার দিকে অটো রিকশাযোগে বাড়ি ফেরার পথে তিনি ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বাইমাইল এলাকায় পৌঁছলে ওই চার যুবক জোরপূর্বক রিকশা থেকে নামিয়ে তাকে মারধর করে। এক পর্যায়ে তাকে ওই এলাকায় বিলের মধ্যে একটি নৌকায় তুলে নেয়। পরে চারজন মিলে রাতভর ধর্ষণ করে শুক্রবার ভোরে ছেড়ে দেয়। ভিকটিম বাড়ি ফিরে তার স্বামীকে ঘটনা জানায়। স্বামীর পরামর্শে শনিবার সকালে কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে ভিকটিম অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে ও আশেপাশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে শনিবার রাতে মনির হোসেন ও কাওসার আলীকে গ্রেফতার করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তিতে রবিবার সকালে মোফাজ্জল হোসেন ও আরব আলীকে কোনাবাড়ি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ইন্সপেক্টর মোবারক হোসেন আরো জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর