May 30, 2024, 6:07 pm

সংবাদ শিরোনাম
রংপুর সিটির তিন মাথায় নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু, ইউপি চেয়ারম্যান ও ভবন মালিকের যোগসাজসে গোপনে লাশ দাফন আদমদীঘির ধান শরিয়তপুরে উদ্ধার; গ্রেপ্তার-২ অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনকালে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা হতে ০৬ জন পরিবহন চাঁদাবাজকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান এলাকা হতে গাঁজা ও বিদেশী পিস্তলসহ কুখ্যাত অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী সাগর’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কায় চালকের মৃত্যু ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর প্রভাবে উপকুলের সতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত কুড়িগ্রামে বেবী তরমুজের চাষে তিন মাসে আয় দেড় লাখ টাকা মাঝরাত্রে প্রবাসীর ঘরে ঢুকে স্ত্রীও মা কে ছুরি মেরে পালালো দুর্বৃত্তরা বগুড়ার শিবগঞ্জে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন: এমদাদুল আহবায়ক রবি সদস্য সচিব গাইবান্ধা প্রেসক্লাব’র কমিটি গঠিত

চট্টগ্রামে ইয়াবাসহ গ্রেফতার তিনজনের কারাদণ্ড

চট্টগ্রামে ইয়াবাসহ গ্রেফতার তিনজনের কারাদণ্ড

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক 

৫৪ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় দায়ের হওয়া দুইটি মামলায় তিনজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ মো.শাহেনূর এই রায় দিয়েছেন। দণ্ডিতদের মধ্যে ৫২ হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার হওয়া শাহজাহান ও মানিককে ৮ বছর করে কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দণ্ডিত ওসমানকে ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট মো.ফখরুদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের ৩ আগস্ট ওসমানকে ২০০০ পিস ইয়াবাসহ নগরীর কোতয়ালি থানার ব্রিজঘাট এলাকা থেকে গ্রেফতার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একটি টিম। অধিদপ্তরের পরিদর্শক মোহাম্মদ আবুল কাশেম বাদি হয়ে মামলা দায়েরের পর ৫ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ১০ নভেম্বর আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেওয়ার পর ৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। ওসমান বর্তমানে পলাতক আছেন। এদিকে ২০১৫ সালের ২৮ ডিসেম্বর বাকলিয়া থানার মীর ফিলিং স্টেশনের সামনে একটি কাভার্ডভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে ৫২ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। চালক শাহজাহান ও সহকারী মানিককে গ্রেফতার করা হয়। এই ঘটনায় অধিদপ্তরের পরিদর্শক ইব্রাহিম খান বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ২০১৬ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২৫ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠনের পর ৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নেওয়া হয়। দুজনই বর্তমানে কারাগারে আছেন।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর