July 19, 2024, 8:48 am

সংবাদ শিরোনাম
বোরহানউদ্দিন থানা পুলিশের অভিযানে ১০ হাজার ইয়াবাসহ যুবক আটক পার্বতীপুরে নব-নির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ভাই চেয়ারম্যানদ্বয়ের সংবর্ধনা রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা হতে জাল সার্টিফিকেট ও জাল সার্টিফিকেট তৈরীর সরঞ্জামাদিসহ ০২ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ র‌্যাব-১০ এর অভিযানে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং এলাকা হতে ইয়াবাসহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কক্সবাজারে ভারী বৃষ্টিপাত পাহাড় ধ্বসে নারী-শিশু নিহত পীরগঞ্জে মসজিদের দোহাই সরকারি খাস জমির গাছ কর্তন পার্বতীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক হোসেন এর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন দারুসসালাম লাফনাউট মাদ্রাসার দস্তারবন্দী নিবন্ধন ফরম বিতরণ শুরু পীরগঞ্জে নিখোঁজের একদিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার মাদক মামলায় ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত দীর্ঘদিন পলাতক আসামী আলাউদ্দিন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০

চট্টগ্রামে অস্ত্র মামলায় দুজনের কারাদণ্ড

চট্টগ্রামে অস্ত্র মামলায় দুজনের কারাদণ্ড

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

চট্টগ্রামে অস্ত্র ও বিস্ফোরকসহ গ্রেফতারের অভিযোগে দায়ের হওয়া দুই মামলায় পৃথকভাবে দুই আসামিকে মোট ১৮ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় জননিরাপত্তা ট্রাইব্যুনালের বিচারক (বিশেষ জজ) সৈয়দা হোসনে আরা এই রায় দিয়েছেন। দণ্ডিত দুই আসামি হলেন ওমর ফারুক ও শওকত হোসেন। গ্রেফতারের পর জামিনে গিয়ে দুই আসামি পলাতক আছেন বলে জানিয়েছেন ট্রাইব্যুনালের পিপি জাহাঙ্গীর আলম। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০০ সালের ২৮ জুলাই নগরীর কোতোয়ালি থানার সিনেমা প্যালেস এলাকায় দুই আসামি অপরাধ সংঘটনের জন্য ওঁৎ পেতে ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ তাদের গ্রেফতারের জন্য গেলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ছুঁড়ে মারে। এ সময় একটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে ৩টি ককটেল, একটি এলজি ও এক রাউন্ড গুলিসহ আটক করে। এই ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় অস্ত্র আইনে এবং বিস্ফোরক আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়। ২০০৩ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ও ১৯ (এফ) এবং বিস্ফোরক আইনের ৩ ও ৫ ধারায় অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। ২০০৪ সালের ৩ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। পাঁচজন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের পর আদালত দুই আসামিকে অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ধারায় ১০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন। অস্ত্র আইনের ১৯ (এফ) ধারায় প্রমাণ না হওয়ায় সাজা হয়নি। এছাড়া বিস্ফোরক আইনের ৩ ধারায় ৫ বছর এবং ৫ ধারায় ৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর