July 13, 2024, 3:24 am

সংবাদ শিরোনাম
রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকা হতে জাল সার্টিফিকেট ও জাল সার্টিফিকেট তৈরীর সরঞ্জামাদিসহ ০২ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ র‌্যাব-১০ এর অভিযানে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং এলাকা হতে ইয়াবাসহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কক্সবাজারে ভারী বৃষ্টিপাত পাহাড় ধ্বসে নারী-শিশু নিহত পীরগঞ্জে মসজিদের দোহাই সরকারি খাস জমির গাছ কর্তন পার্বতীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক হোসেন এর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন দারুসসালাম লাফনাউট মাদ্রাসার দস্তারবন্দী নিবন্ধন ফরম বিতরণ শুরু পীরগঞ্জে নিখোঁজের একদিন পর শিশু’র লাশ উদ্ধার মাদক মামলায় ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত দীর্ঘদিন পলাতক আসামী আলাউদ্দিন’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০ যশোরের মুজিব সড়ক থেকে উদ্ধার হওয়া মরদেহ ঝিকরগাছার আখির মোবাইলে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ডিলিট না করায় কক্সবাজারে বন্ধুকে হত্যা

মণিপুর রাজ্যের অখ-তা চান মুসলিম নেতারা

মণিপুর রাজ্যের অখ-তা চান মুসলিম নেতারা

ডিটেকটিভ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের মণিপুর রাজ্যের অখ-তা বজায় রাখার দাবি জানিয়েছেন মণিপুর মুসলিম কল্যাণ সংগঠনের (এমএমডব্লিউও) নেতারা। তাঁদের দাবি, নাগা শান্তিচুক্তির নামে মণিপুরের অখ-তার সঙ্গে আপোশ করা চলবে না। একই সঙ্গে রাজ্যের মসজিদগুলো সুরক্ষিত রাখার দাবি তোলেন তাঁরা। ন্যাশনাল সোশ্যালিস্ট কাউন্সিল অব নাগাল্যান্ড-আইজাক মুইভা (এনএসসিএন-আইএম) গোষ্ঠীর সঙ্গে ভারত সরকারের প্রস্তাবিত শান্তিচুক্তির মধ্যে আশঙ্কার কালো মেঘ দেখছেন সংগঠনটির নেতারা। তাঁদের আশঙ্কা, নাগা জঙ্গিদের দাবি মেনে ভারত সরকার নাগলিম বা বৃহত্তর নাগাল্যান্ডের দাবি মেনে নিতে পারেন। এতে মণিপুরের একটি বড় অংশ চলে যাবে তাদের হাতে। এতে নতুন করে এ রাজ্যের মুসলমানেরা সমস্যায় পড়তে পারেন।

এমএমডব্লবিউও-এর সভাপতি আবদুল্লা পাঠান বলেন, বিজেপি নাগা শান্তি আলোচনা নিয়ে দ্বিচারিতা করছে। মুখে বলছে মণিপুরকে ভাগ হতে দেবে না। কিন্তু তলে তলে গোপন অভিসন্ধি তাঁদের। এটা কিছুতেই বরদাশত করা যাবে না।

আবদুল্লা পাঠান বলেন, ‘আমরাও চাই নাগা শান্তি চুক্তি হোক। শান্তি আসুক। কিন্তু সেটা মণিপুরের অঙ্গহানির মাধ্যমে নয়।’

২০০১-এর আদমশুমারি অনুযায়ী, মণিপুরে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯৩৯ জন মুসলিম ছিলেন। জনসংখ্যার শতকরা হার ছিল ৮ দশমিক ৩২ শতাংশ। কিন্তু ২০১১ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৪০ শতাংশ।

মণিপুরেরই উখরুল জেলায় নতুন আদালত ভবন স্থাপনের নামে একটি মসজিদকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনার কড়া সমালোচনা করেছে এমএমডব্লিউও। একই সঙ্গে রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে মুসলিমদের বিভিন্ন সংগঠন।

Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর