December 1, 2021, 4:04 pm

শিরোনাম :
হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ॥ ৪টি নৌকা এবং ৪টিতে স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থীর জয়। রাজধানীর শ্যামপুর এলাকা হতে ০৮ কেজি গাঁজাসহ ০৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (আইডিইবি) ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন। প্রান্তিক শিশুদের মানসম্পন্ন শিক্ষায় ৩ কোটি ৪৭ লাখ ডলার অনুদান দিয়েছে ইউনিসেফ। এমপিওভুক্তির যোগ্য সরকারি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা সাড়ে আট হাজার। স্বেচ্ছাসেবীর অভাবে “পথশিশু সেবা সংগঠন ” এর রাস্তায় সেবা দেওয়ার কার্যক্রম কঠিন হয়ে যাচ্ছে। শরীয়তপুরে গোসাইরহাট উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন গ্রহনের লক্ষ্যে রিটার্নিং অফিসারদের সর্বশেষ প্রস্ততি সম্পন্ন। প্রিজাইডিং আফিসারদের ভোট কেন্দ্রে গমনের প্রস্তুতি আমরা চাই ফেয়ার নির্বাচন রংপুরে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু হবিগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার বিদ্রোহী হওয়ায় ২৫ নেতাকর্মীকে বহিষ্কার করল আওয়ামী লীগ -রাজধানীর কদমতলী এলাক হতে ১৩,৬০৯ পিস বিক্রয় নিষিদ্ধ সরকারী ঔষধসহ ০১ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ভোলা বোরহানউদ্দিনে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩৮ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল নাগরপুরে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হামলা গুলিবর্ষন নিহত ১ গুলিবিদ্ধসহ আহত ২ বেনাপোলে ফেনসিডিল সহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক ঠাকুরগাঁওয়ে বর্ণিল আয়োজনে ওয়ার্ল্ড ভিশনের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন বেনাপোলে ১০ টি বোমা- দুই হাজার বোমার সরঞ্জাম সহ আটক-৪ হল্যান্ডের বন্দরনগরী রটারডামে লকডাউনের বিরুদ্ধে পুলিশের সাথে জনতার সংঘর্ষ চাঁদপুরে গণঅধিকার পরিষদের প্রতিনিধি সভা এবং আনন্দ শোভাযাত্রা লালপুরে চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ নিখোঁজের ৩দিন পর সেফটি টেংকি থেকে নুসরাতের লাশ উদ্ধার

যশোর সদর ২নং লেবুতলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

Spread the love
যশোর প্রতিনিধিঃঃ
যশোর সদর ২নং লেবুতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলিমুজ্জামান মিলনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে  ৭ ইউপি সদস্য প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
গত (১৯-১০-২০২১ ইং)মঙ্গলবার তারা দুর্নীতি দমন কমিশন, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন দফতরে এ অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। অভিযোগকারীরা হলেন, ইউপি সদস্য মোহন কুমার ঘোষ, আসাদুজ্জামান, নজরুল ইসলাম, মুনতাজ আলী, শওকত হোসেন, রমিতা খাতুন ও রবিউল ইসলাম।
২নং লেবুতলা ইউনিয়নের মেম্বারদের অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, যশোর সদরের লেবুতলা ইউনিয়নের আলিমুজ্জামান চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন। তার দুর্নীতির কারণে তার পরিষদের সদস্যরা জন গনের সকল সুবিধা বঞ্চিত ও অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন ।
বর্তমান সরকার জীবন জীবিকা পরিচালনার জন্য চেয়ারম্যান ও মেম্বরদের সম্মানি ভাতা বৃদ্ধি করেছে। যার একটি অংশ চেয়ারম্যানের দেয়ার কথা থাকলেও এ পর্যন্ত কোনো সম্মানি ভাতা চেয়ারম্যান দেয়নি । কোনো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পরিষদ সদস্যদের মিটিং ছাড়াই চেয়ারম্যান ব্যক্তিগত কায়দায় সচিবকে দিয়ে রেজুলেশন করে জমা দেন। কোনো অর্থবছরে এলজিএসপির টাকা আসলে মেম্বরদের জানানো হয়না। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ৩০-৪০ হাজার টাকার কাজ মেম্বরদের দিয়ে করা হয়। বাকি টাকা দিয়ে চেয়ারম্যান কি করেন তা কোনো মেম্বর জানেন না।
চেয়ারম্যান ১২ জন মেম্বরের সীল তৈরি করে নিয়েছেন। নিজে বা কাউকে দিয়ে স্বাক্ষর করিয়ে এইসব সীল বিভিন্ন প্রকল্পের বিল ভাউচারে ব্যবহার করা হয়। যা মেম্বররা কেউ জানেন না। এ ইউনিয়নের ট্যাক্স এনজিও কর্মীদের দিয়ে আদায় করা হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন খাত থেকে উপার্জিত অর্থ কোন খাতে ব্যয় করা হয় তা কোনো সদস্য জানেন না।
বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা ও মাতৃত্বকালিন ভাতার কার্ড দুই একটি মেম্বরদের দেয়া হয়। বাকি কার্ড চেয়ারম্যান তার নিজস্ব লোকদের দিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে কার্ড দেয়ার জন্য জনপ্রতি ৫ থেকে ৮ হাজার টাকা তাদের দিতে হয়। চেয়ারম্যনের ভাই পুরতন কার্ডধারীদের বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে বাতিল করে নতুন কার্ড করে দেয়ার কথা বলে লোকজনের কাছ থেকে ব্যাপক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।
করোনার সময় সরকারের দেয়া অনুদান কোনো অভাবি লোক পায়নি। যারা চেয়ারম্যানের কাছের লোক তাদের এ অনুদান দেয়া হয়েছে। এমনকি গাভী খামারির অনুদান দেওয়া হয়েছে, তাদের কারো কোন খামার বা গাভি নেই। চেয়ারম্যান করোনার অনুদান দিবে বলে লোকজনের কাছ থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র নিলেও তাদের কোনো অনুদান দেয়া হয়নি। পল্লী সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ প্রকল্পে মহিলা নিয়োগ দিয়ে চেয়ারম্যান জনপ্রতি ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা নিয়েছেন।
আর্সেনিকমুক্ত নলকুপ দেওয়ার কথা বলে মেম্বরদের মাধ্যমে টাকা নিলেও পরবর্তীতে চেয়ারম্যান তাদের নলকুপ না দিয়ে অন্যদের কাছ থেকে বেশি টাকা নিয়ে তাদের নলকুপ দিয়েছেন।
এ সব বিষয়ে ইউপি সদস্যরা কথা বল্লে চেয়ারম্যান তা আমলে নেন না। অবশেষে চেয়ারম্যানের অনিয়ম দুর্নীতির বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে ঐ ৭ ইউপি সদস্য মঙ্গলবার প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে এ অভিযোগ দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।
Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ