June 19, 2021, 8:41 pm

শিরোনাম :
পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় ও পরিবেশ অধিদপ্তরের গাড়ি চালকদের হর্ণ না বাজানোর শপথ সুন্দরগঞ্জে যৌন হয়রানী ও প্রতারণার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন বগুড়ায় মধ্যরাত থেকে ৭ দিনের লকডাউন গাইবান্ধায় ছুরিকাঘাতে এক ইলেক্ট্রনিক ব্যবসায়ী যুবক নিহত চিরিরবন্দরে গৃহবধুর অস্বাভাবিক মৃত্যু, বিষপানে স্বামীর আত্মহত্যার চেষ্টা যশোরে প্রতিদিনই করোনায় নতুন নতুন রেকর্ড গড়ছে পীরগঞ্জে ভাসুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টায় মামলা: আটক ১ আমদানি রফতানি বানিজ্য সচল রেখেই বেনাপোলে এক সপ্তাহ লকডাউন ঘোষণা মিরপুর ৬ নং ওয়ার্ডের ট ব্লকে কৃষকের বাজার উদ্বোধন হাসপাতালে অবৈধ দালাল চক্রের ৯ সদস্যকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড প্রদান ঝাটকা ইলিশ ধরার অপরাধের জন্য ৪ জেলেকে জরিমানা গাইবান্ধায় তুচ্ছ ঘটনায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে ২০জন আহত গাইবান্ধায় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ও প্রেসবিফ্রিং জগন্নাথপুরে অত্যাচারে অতিষ্ঠ প্রবাসী পরিবার ভাইয়ের স্ত্রীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ, গ্রেফতার ৩ জৈন্তাপুরে ৪ টি মামলার ফেরারি আসামী ইমন আটক। সুনামগঞ্জে তরুণীর প্রতারণার ফাঁদে পড়ে জীবন দিতে হল জনিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে ৬ জুয়াড়ি গ্রেফতার অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মাছ সংরক্ষণ, বিক্রয় ও বাজারজাত করায় ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা গাজায় আবারো ইসরায়েলের হামলা

দ্বৈব নির্দেশে সুন্দরীমালাকে কিনলেন লালমনিরহাটের দুলাল

Spread the love
মৃনাল কান্তি রায় সরকার, লালমনিরহাটঃঃ
ব্যক্তিগত উদ্যোগে হাতি কিনে পালন করার ঘটনা বিরল হলেও সেটি করেছেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের দেউপাড়া নিবাসী দুলাল চন্দ্র রায়।
বিভিন্ন ঘটনা ও এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়, দুলাল চন্দ্র রায়ের স্ত্রী তুলসী রানী খুবই ধর্মভীরু প্রকৃতির। বিয়ের পর তাদের দু’টি সন্তান জন্মানোর পর থেকেই তাঁর উপর বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দেব-দেবী ভর করা এবং বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেয়া শুরু করে। সেই দিকনির্দেশনা মোতাবেক তিনি বিভিন্ন রোগী বা সেবাগ্রহীতার সমস্যার সমাধান দিতেন। অনেকে দেব-দেবী প্রদত্ত পরামর্শে তুলসী রানীর দেয়া তথ্যে রোগমুক্তি বা বিভিন্ন সমস্যার সমাধানও পেতেন। দীর্ঘদিন যাবত এভাবে চলে আসছিলো। এখন দেব-দেবীর দৈব নির্দেশনা যে তাদেরকে বিভিন্ন প্রজাতির জন্তু কিনে বাড়িতে পালন করতে হবে। এই নির্দেশনা অনুসারে ইতিমধ্যে তিনি ঘোড়া, খঁড়গোশ, রাজহাঁস প্রভৃতি কিনে বাড়িতে পালন করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৪ই সেপ্টেম্বর খুলনা থেকে সুন্দরীমালা নামক হাতিটি ক্রয় করে নিয়ে আসেন দুলাল চন্দ্র রায়।
উক্ত এলাকার বাসিন্দা পলাশ চন্দ্র রায় দেবসিংহ বলেন, “মোটামুটি সব ধরনের দেব-দেবী’র স্থান ওনাদের বাড়িতে রয়েছে। আর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন এখানে এসে মানত ও পুঁজো করে যায়। অনেকের মনোবাসনা পূর্ণ হওয়ায় নিজ উদ্যোগে কয়েকটি  মন্দিরও বানিয়ে দিয়েছেন।”
হাতির মালিক দুলাল চন্দ্র রায় বলেন, “দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে বিভিন্ন দেব-দেবী আমার স্ত্রীর উপর ভর করা শুরু করে। প্রথমদিকে আমি এগুলো বিশ্বাস করতাম না। কিন্তু একদিন ঘটনাচক্রে দেবীমূর্তির আবির্ভাব আমার স্ত্রীর মধ্যে দৃশ্যমান হওয়ায় আমি সেদিন থেকে বিশ্বাস করতে বাধ্য হয়েছি।”
তিনি আরও বলেন, ” ঠাকুরের নির্দেশ পালন করার জন্য আমার পৈতৃক সম্পত্তি বিক্রির ১৬ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা দিয়ে হাতিটি কিনে এনেছি।”
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী দুলাল চন্দ্র রায়ের বাড়িতে হাতি দেখার জন্য বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত দর্শনার্থীদের ভীড় লেগেই আছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দর্শনার্থীরা এসে হাতি দেখছেন।
Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ