December 8, 2022, 9:21 pm

সংবাদ শিরোনাম
ভুল চিকিৎসায় শিশু মাইশাকে হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন রংপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে নবাগত জেলা প্রশাসককে ফুলেল শুভেচছা জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্যই আমার সংগ্রাম: প্রধানমন্ত্রী নয়াপল্টনে বিএনপি সমাবেশ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কড়া বার্তা সোশ্যাল মিডিয়ায় আওয়ামী লীগ বিরোধী অপপ্রচারের যথাযথ জবাব দিতে হবে : ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী বিতর্কে সিলেটের পুলিশ উলিপুরে ছেলের সাথে অভিমান করে মায়ের আত্মহত্যা ইসলামপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ স্ত্রী ও তার সহযোগীদের হাত থেকে বাঁচতে চায় স্বামী ঘোড়াঘাটে সাংবাদিকের বাড়ীতে গভির রাতে সন্ত্রাসী হামলা ও লুটপাট

তানোরে পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত আমন ধান, নেই কৃষি অফিসের তদারকি!

এস আর,সোহেল রানা,(রাজশাহী)তানোর,প্রতিনিধিঃ
রাজশাহীর তানোরে আমন ধানে হঠাৎ করে পাতা পোড়া রোগে আক্রান্তে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষক। অথচ আমন ধানের রোগ বালাই নিয়ে মাঠে দেখা পাচ্ছে না কৃষি দপ্তরের কর্মকর্তাদের তদারকি। ফলে আমন ধান নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তানোর উপজেলার আমন চাষীরা। উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের মাদারীপুর আমন ধানের বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে এমন পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে আমন ধান। কৃষকরা সকাল বিকেলে বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক স্প্রে করেও কোন সুফল পাচ্ছে না আমন ধানে। এতে করে চরম হতাশ হয়ে পড়েছে কৃষকরা। মাদারীপুর গ্রামের কৃষক এমদাদুল হক জানান, এবার আমন চাষের মৌসুম থেকে কৃষকদের দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে চরমে।
গত বারের চাইতে এবার আমন চাষের সঠিক সময়ে বৃষ্টির দেখা পাওয়া যায়নি,সেই সাথে সংকট পড়ে সার পটাশের। তাঁর পরেও কৃষকরা যেভাবেই হোক সার পটাশ পানি কিনে হোক আর পুকুর থেকে স্যালোমেশিন দিয়ে হোক সেচের ব্যবস্থা করে আমন ধান চাষ করেছেন। কিন্তু হঠাৎ করে ধানে পচন ও কারেন্ট পোকা এবং পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত হয়ে পুড়ে যাচ্ছে ধানের পাতা। প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক স্প্রে করেও কোন প্রতিকার হচ্ছেনা। জানা গেছে, আমন ধানে পচন ও কারেন্ট পোকা এবং পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত হওয়ার পরেও কৃষকের মাঝে কোন প্রকার পরামর্শ দিতে কৃষি অফিসের কোন উপসহকারী কর্মকর্তাদের দেখা পাচ্ছেনা কৃষকেরা। যার কারণে কৃষকরা বাজার থেকে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন নামি-দামি কোম্পানির নকল কীটনাশক বিষ জমিতে স্প্রে করে প্রতারিত হচ্ছেন কৃষকরা। তানোর পৌর এলাকার চাপড়া গ্রামের কৃষক মতিন বলেন,বাজারে যেভাবে নামি-দামি কোম্পানির কীটনাশক বিষ বিক্রি করা হচ্ছে, তাতে কোনটা আসল আর কোনটা নকল কীটনাশক বোঝা বড় দায় কৃষকের। বিভিন্ন রকমের মনোগ্রাম দিয়ে নকল কীটনাশক বিষ বিক্রি করে করা হচ্ছে কৃষকের সর্বনাশ। তানোর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল্লাহর ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর