March 5, 2024, 9:23 am

সংবাদ শিরোনাম
শিক্ষক হাজির ২জন শিক্ষার্থীও হাজির ২ জন উলিপুরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন চিলমারীতে এইড-কুমিল্লার ই-কমার্স বিষয়ে সচেতনতা মূলক র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ০৪ সদস্যকে গোপালগঞ্জের সদর থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্রের চরের শিশুদের শিক্ষা উপকরণ দিলো বাফলা পটুয়াখালীতে আগুনে পুড়ে গেছে মাছের আড়তসহ ৬ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। কুয়াকাটায় পালিত বিশ্ব বন্যপ্রানী দিবস পালিত হয়েছে শার্শায় মরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগে কসায়সহ দুজনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত ভোলায় ২২ লক্ষ মানুষের জন্য নেই ব্লাড ব্যাংক সুন্দরগঞ্জে মাদক ব্যবসা অবাধে চলছে নেই কোন প্রতিকার

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে সরকারী জমি দখল করে বাড়ী ঘর নির্মাণ। স্থানীয় জনগণের চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে

কাজী ওহিদ-গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি-  গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ডাংগাদূর্গাপুর গ্রামের ১৬নং দাসেরহাট মৌজার ১নং খাস খতিয়ানে ৩৫৭নং দাগে-২ একর ৫১ শতাংশ জমি সরকার বাহাদুরের নামে রেকর্ড রয়েছে।
গ্রামের সাধারন মানুষ খেলাধুলার মাঠ হিসেবে দীর্ঘদিন যাবৎ এই জমিটি ব্যবহার করেছেন। গ্রামবাসী ও এলাকার জনগণের প্রয়োজনে হালট জমির উপর দিয়ে কয়েক বছর আগে বর্তমান সরকার একটি রাস্তা নির্মাণ করেছেন। একই গ্রামের বাসিন্দা মৃত আদিল উদ্দিন গাজীর ছেলে কাওছার গাজী ও কাওছার গাজী ছেলে ইলিয়াছ গাজী হালট জমির পাশে ৭/৮ বছর আগে জমি ত্রুয় করে বাড়ী তৈরী করেছেন। ত্রুয়কৃত জমির অধিকাংশ জায়গায় পুকুর কেটে সরকারী জমিতে বাড়ী বানিয়ে  বসাবাস করছেন। বাড়ি আশ পাশে হালটের সমস্ত জায়গা আস্তে আস্তে সে কৌশলে দখল করে নিয়েছে। একদিকে গ্রামের ছেলেমেয়েরা খেলাধুলার মাঠ হতে  বঞ্চিত হয়েছে অপরদিকে রাস্তার পাশে কোন জায়গা না থাকায় জনগণের যানবাহন নিয়ে চলাচলের দারুন সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। ইলিয়াস গাজী পিতা কাওছার গাজী প্রায় ৫/৬ বিঘা জমির মালিক থাকা সত্ত্বেও নিজের জায়গায় পুকুর কেটে সরকারি হালট জায়গা ভোগ দখল করে রেখেছেন।
অবৈধ ভাবে দখলীয় ব্যক্তি মালিকদের কাছ থেকে সরকারী জায়গা উদ্ধার করার জন্য গত ৩০-১০-
২০২২ই তারিখে গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ডাংগাদূর্গাপুর গ্রামের মোঃ মশিউর রহমান গাজী, ইউ,পি সদস্য মোশারেফ হোসেন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে গ্রামের বেশ কিছু লোক মুকসুদপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এব্যাপারে পুরাতন মুকসুদপুর তহশিল অফিসের  ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা দেবরতন বিশ্বাসের সাথে মোবাইল ফোনে মাধ্যমে যোগাযোগ করলে তিনি সাংবাদিকের কাছে এলাকার কয়েক ব্যক্তি মুকসুদপুর উপজেলা সহকারী (ভুমি) কমিশনার নিকট একটি অভিযোগ দায়ের করার কথা স্বীকার করেছেন  এবং দ্রুত ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
বিষয়টি ব্যাপারে স্থানীয় জনগণ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য দাবী জানিয়েছেন।
Facebook Comments Box
Share Button

     এ জাতীয় আরো খবর