June 14, 2021, 9:32 pm

শিরোনাম :
বোট ক্লাবের কমিটি থেকে নাসির বহিষ্কার ন্যায়বিচার পাব: পরীমনি বগুড়ায় ৭ ইউনিয়নের প্রবেশপথ বন্ ভারতে পাচারের সময় শিশুসহ আটক ৭ দুমকিতে জামাই’র হাতে শ্বাশুড়ি খুন নাটোরের বড়াইগ্রামে পারিবারিক কলহের জেরে এক ব্যাক্তির আত্মহত্যা ঝিনাইদহ থেকে ডাকাতি হওয়া পাটভর্তি ট্রাক খুলনা থেকে উদ্ধার, গ্রেফতার-০৭ মোগলাবাজারে প্রতিপক্ষের গাড়ীতে সন্ত্রাসী হামলা সৌদিতে বাস করা ছাড়া কেউ হজ করতে পারবে না ৫ লাখ টাকা জরিমানা, ৩ ম্যাচে নিষিদ্ধ সাকিব সুন্দরগঞ্জে ৬ জুয়াড়ি গ্রেপ্তার কেরাণীগঞ্জে ৬ প্রতিষ্ঠানকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা পেটের ভিতরে ইয়াবা বহন; কারবারি শহিদুল আটক বেনাপোল স্হল বন্দর দিয়ে পন্য আমদানিতে কাষ্টমসের ৮ শর্ত জারি এবারে মৃত্যু ছাড়াল ১৩ হাজার বেড়েছে চিনি-আটার দাম, সব্জির বাজারে স্বস্তি ২ মাস পর ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি তারাগঞ্জে ব্র্যাকের কার্যালয়ে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু সরিষাবাড়ীতে বিদ্যুৎ পৃষ্ঠ হয়ে ১ জনের মৃত্যু যশোরে করোনা শনাক্ত বাড়ছেই ; আরও আক্রান্ত ১৪৮

করোনায় ত্রাণ পায়নি ৭৭ শতাংশ মানুষ

Spread the love

ডিটেকটিভ ডেস্কঃঃ

করোনা মহামারিতে আয় কমেছে বহু মানুষের। পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠী আরও পিছিয়েছে। আগে দারিদ্র সীমার ওপরে থাকলেও মহামারি শুরুর পর নেমে এসেছে দরিদ্রের তালিকায়। দূর্ভোগে পড়া লোকজনকে সহায়তায় ভিজিএফের চাল, নগদ টাকাসহ নানা ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছে সরকার।

তবে, সরকারের দেয়া এই ত্রাণ সহায়তা পায়নি দেশের প্রায় ৭৭ ভাগ মানুষ। আর অতিদরিদ্রদের মধ্যে কোনো সহায়তা পাননি ৭৫ ভাগের বেশি মানুষ। ২ হাজার ৬০০ খানা জরিপ করে এ তথ্য দিয়েছে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিপিডি এবং অক্সফাম।

সম্প্রতি ত্রাণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন নিয়ে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিপিডি এবং অক্সফামের এক জরিপ বলছে, সামগ্রিকভাবে ত্রাণ পায়নি ৭৬.৬ ভাগ মানুষ। দরিদ্রদের মধ্যে পায়নি ৭৫.২ ভাগ। আর ত্রাণ পাওয়াদের মধ্যে ৪৪ ভাগই অবস্থাসম্পন্ন। এছাড়া খাদ্য সহায়তা পায়নি ৫০ ভাগ অতিদরিদ্র।

চলমান ত্রাণ কার্যক্রম সম্পর্কে অবগত মাত্র ১ দশমিক ৬ ভাগ সুবিধাভোগী। এ ক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার এবং প্রচারের সীমাবদ্ধতা মূল কারণ বলছেন গবেষকরা।

এদিকে, করোনার কারণে গত বছর চাল সংগ্রহ কম হওয়ায়, বর্তমানে নগদ সহায়তা বেশি দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান। এখন পর্যন্ত যথাযথভাবেই ত্রাণ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

করোনা মহামারির কারণে আয় কমে যারা নতুন করে দারিদ্র্যসীমায় ঢুকেছেন, তাদের সিংহভাগ সরকারি সহায়তার বাইরে রয়ে গেছে। আবার যারা হতদরিদ্র, তাদের একটি বড় অংশও সহায়তা পাননি। সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে তারা জানতেনও না।

সিপিডির বিশেষ ফেলো মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ সময় সরকার এককালীন আড়াই হাজার টাকা, ত্রাণ হিসেবে নগদ টাকা এবং চাল দিয়েছে। দেশের সবচেয়ে দরিদ্র যে ২৫ শতাংশ মানুষ, তার মধ্যে শুধু এক-চতুর্থাংশ এসব সুবিধা পেয়েছেন। তিন-চতুর্থাংশ মানুষ সরকারের কোনো কর্মসূচি থেকে সহায়তা পাননি।

করোনাকালে বিভিন্ন হটলাইন সুবিধা চালু করে সরকার যে সহায়তার চেষ্টা করছে, সেটির প্রচার খুব একটা হয়নি বলেও জানান তিনি। সিপিডি জেনেছে, মাত্র ১ দশমিক ৬ শতাংশ সরকারি হটলাইন সম্পর্কে জানতেন।

প্রান্তিক পর্যায়ে ত্রাণ সহায়তা নিশ্চিতে তথ্য হালনাগাদ এবং সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন পক্ষকে সম্পৃক্ত করার তাগিদ বিশ্লেষকদের।

//ইয়াসিন//

Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ