May 19, 2022, 11:09 am

শারীরিক সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন দেশবাসীর কাছে পীরজাদা মাওলানা মুশফিকুর রহমান

 দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ থানার আখিরার গ্রামের অধিবাসী পীরজাদা মাওলানা মুশফিকুর রহমান তিনি শারীরিক সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন দেশবাসীর কাছে।
 অশীতিপর বার্ধক্য আর গুরুতর অসুস্থতা বহন করছেন তিনি। দেড় বছর আগে স্ট্রোক করে ডান হাত এবং ডান পা অবস অবস্থায় পরে আছেন। এর আগে দুইবার মটর সাইকেল এক্সিডেন্টে আহত হন।
তিনি উত্তর বঙ্গের স্বনামধন্য আলেম এবং দায়ী মরহুম আজগার আলী পীর সাহেবের সন্তান। মরহুম আজগার আলী পীর সাহেব ১৯৩৩ সালে কলিকাতা আলীয়া মাদরাসা হতে ফাযিল পাশকরেন একজন মুহাক্কিক আলেম এবং মুফতি ছিলেন, ছিলেন আরবি ও বাংলা ভাষায় সুপণ্ডিত। তিনি ছিলেন ফুরফুরা দরবার শরীফের খলীফা, পীর মাশায়েখগণের চিরায়ত বিশিষ্ট্য প্রতিনিধি। ইসলামের মর্মবাণী উত্তরবঙ্গসহ সারা দেশে ছড়িয়ে দেবার প্রয়াসে ওয়াজ করেছেন এবং অসংখ্য মসজিদ মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় সংগঠকের ভূমিকা পালন করেন। ১৯৬৩ সালে তিনি ইন্তেকাল করেন।
মরহুম পিতার পথ ধরে মাওলানা মুশফিকুর রহমানও হয়েছেন কল্যাণ ও শুভেচ্ছার বারতাবাহী। অর্ধ শতাব্দীকাল দ্বীনের দাওয়াতি কাজে দরদি এবং পরিশ্রমী ভূমিকা পালন করেন। গ্রাম থেকে গ্রামে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে কল্যাণকে ফেরি করে ফিরেছেন, প্রাণ ভরে দোয়া করেছেন সবাইকে। একসময় এই অঞ্চলের সব ওয়াজ মাহফিলে অনিবার্য অংশগ্রহণ ছিল তার। মোহগ্রস্ত  হবার মত সুরেলা কণ্ঠস্বর, বিনম্র আচরণ এবং শুভকামনায় ঋদ্ধ ওয়াজ- বয়ানের কারণে গণমানুষের আত্মার আত্মীয় হয়ে ওঠেন তিনি। সাধারণ মানুষের জন্য অকৃত্রিম ভালোবাসা বিলিয়ে দিয়ে অগণিত মানুষের ভালোবাসায় সম্মানিত ব্যক্তিত্ব।
পীরজাদা মাওলানা মুশফিকুর রহমান ০১৭২৫৬১৬১৪৮, আখিরা ( দাউদপুর ), নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর।
দোয়া করি আল্লাহ শেফা দান করুন। ঈমান আমানের সাথে দীর্ঘজীবী হোন।
শিক্ষাজীবনঃ
দাখিল ১৯৬১, কাচদহ ফাযিল মাদরাসা, নবাবগঞ্জ দিনাজপুর।
আলিম ১৯৬৩ + ফাযিল ১৯৬৫, হানাইল নো’মানীয়া কামিল মাদরাসা, জয়পুরহাট।
কামিল ১৯৬৭, মোস্তাফাবিয়া কামিল মাদরাসা, বগুড়া।
Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ