May 9, 2021, 11:08 pm

শিরোনাম :
যাত্রাবাড়ী ও দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ এলাকায় পৃথক অভিযানে গাঁজা ও ইয়াবাসহ ০৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার রাবি ভিসির ‘মানবিক নিয়োগ’ টিকবে কি? ২৪ ঘণ্টায় আরো ৫৬ মৃত্যু দণ্ডিত হওয়ায় বিদেশে চিকিৎসা নিতে যেতে পারবেন না খালেদা নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের যোগদান স্থগিত করলো রাবি প্রশাসন ফেরি বন্ধ থাকলেও ঘাটে বাড়িফেরা মানুষের ভিড় যশোরে দু’জনের শরীরে করোনার ইন্ডিয়ান ভ্যারিয়েন্ট ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু অতিদরিদ্রদের ৪০ দিনের কর্মসূচির নামে কোটি টাকা লুটপাটের পায়তারা কিটের মূল্য কমলেও কমেনি বেসরকারি ল্যাবে করোনা পরীক্ষার ফি খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে মতামত কাল: আইনমন্ত্রী ভারতে একদিনে ৪ হাজারের বেশি মৃত্যুর নতুন রেকর্ড শ্রীমঙ্গলে ১ কোটি ২৫ লাখ টাকার ভারতীয় চশমা—সানগ্লাস আটক চীনা রকেটের ধ্বংসাবশেষ এ সপ্তাহেই আছড়ে পড়বে পৃথিবীতে ইসলামের নামে সহিংসতায় জড়িতরা অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সেনা প্রত্যাবর্তনে আফগানিস্তানে যুদ্ধবিমান পাঠাবে আমেরিকা আইপিএল স্থগিতে ক্ষতি ২৮৮১ কোটি টাকা ঈদের আগে অস্থির নিত্যপণ্যের বাজার জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ সভাপতিকে প্রাণ নাশের হুমকি জগন্নাথপুরে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা পটুয়াখালীতে একাধিক চুরি, ডাকাতি ও ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

পীরগঞ্জে উপজেলা ত্রান ও পুর্নবাসন কর্মকর্তার অবহেলায় শত শত পরিবারের অনিশ্চয়তা

Spread the love

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃঃ

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার গাফিলাথির কারনে কাল বৈশাখীর ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্থ শত শত  পরিবার অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। ফলে  ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবার গুলোকে খোলা আকাশসহ বৃষ্টির পানিতেই কাটছে দুর্বিসহ জীবন যাপন।
প্রকাশ, গত ২২ এপ্রিল বৃহস্পতিবার পীরগঞ্জের ১৫ টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি ইউনিয়নে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টি  আঘাত হানে। এতে উপজেলার ভেন্ডাবাড়ী, কুমেদপুর, বড়দরগাহ, শানেরহাট ও মিঠিপুর ইউনিয়নের উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষতির পাশাপাশি প্রাায় ২ সহস্রাধিক বাড়ী ঘরের টিনের চালা শিলা বৃষ্টিতে ফুটো হওয়ায় ঘরগুলো বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবার গুলোর বেশীর ভাগ অর্থাভাবে ঢেউ টিন ক্রয় পুর্বক ঘর গুলোর উপরে ঢেউ টিনের চালা দিতে পারেনি, প্রহর গুনছেন সরকারী সহায়তার। ঝড়ের পরদিন উপজেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ক্ষতিগ্রস্থ্য এলাকা গুলো পরিদর্শন করলেও ১২দিনেও কাউকে ঘর পুনরায় মেরামতের জন্য কোন টিন দিতে পারেনি। ফলে শত শত পরিবারকে এখনো বৈশাখী ঝড়ে বৃষ্টির পানিতে দুর্বিসহ জীবন যাপন করতে হচ্ছে। সমবার পুনরায় সরেজমিনে দেখতে গিয়ে কথা হয়-উপজেলার ছোট মির্জাপুরের আব্দুল মালেক, মেরাজুল, আজিজুল, মন্ডলাবাড়ীর আব্দুস সালাম, গুর্জিপাড়ার শংকরসহ বেশ কিছু সংখ্যক ব্যাক্তির সঙ্গে কথা হলে তারা অভিন্ন প্রতিক্রিয়ায় বলেন-আমাদের ফসল গেল, ঘরের টিন গেল কিন্তু সরকারি ভাবে এখন পর্যন্ত কোন সরকারি সহযোগিতা পাচ্ছি না। ঘরও মেরামত করতে পারছি না, আগামীতে বা সংসারই চলবে কি ভাবে ? বড়দরগাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরল হক মন্ডল এর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন-এ ইউনিয়ন থেকে প্রায় ২ সহ¯্রাধিক ক্ষতিগ্রস্থ ঘরের তালিকা জমা দেয়া হয়েছে। ঢেউটিন বরাদ্ধ না আসায় এখনও টিন বিতরন সম্ভব হয়নি। শানেরহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মন্টু বলেন-আমার ইউনিয়নের প্রায় ঘর ক্ষতিগ্রস্থ, এমন ১৬ শ’জনের তালিকা তৈরী করা হয়েছে, আরও আবেদন আসছে। পীরগঞ্জ উপজেলা প্র্রকল্প বাস্তায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন-আমরা এখনও তালিকা পাইনি। তবুও উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে চাহিদা পাঠিয়েছি, বরাদ্দ আসলেই ক্ষতিগ্রস্থদের দেয়া হবে। এদিকে কবে চাহিদা পাঠানো হয়েছে তা জানতে চাইলে তিনি তা জানাতে পারেননি। সচেতন মহল এ ব্যর্থতার জন্য উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার গাফিলথিকে দায়ি করছেন। উল্লেখ্য এ কর্মকর্তা  টানা চার বছর ধরে এই উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন, দুর্যোগপূর্ন বিষয় গুরো নিয়ে এ কর্মকর্তা বরাবরই হেয়ালিপনা করে থাকেন বলে একাধিক ব্যাক্তি অভিযোগ করছেন। অপরদিকে রংপুর জেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এটিএম আকতারজ্জামান বলেন-আমরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আশা করি এ মাসের মধ্যেই ঢেউটিন পেয়ে যাব। ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবার গুলো এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট।

Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ