May 7, 2021, 8:16 pm

শিরোনাম :
চীনা রকেটের ধ্বংসাবশেষ এ সপ্তাহেই আছড়ে পড়বে পৃথিবীতে ইসলামের নামে সহিংসতায় জড়িতরা অমানুষ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সেনা প্রত্যাবর্তনে আফগানিস্তানে যুদ্ধবিমান পাঠাবে আমেরিকা আইপিএল স্থগিতে ক্ষতি ২৮৮১ কোটি টাকা ঈদের আগে অস্থির নিত্যপণ্যের বাজার জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ সভাপতিকে প্রাণ নাশের হুমকি জগন্নাথপুরে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা পটুয়াখালীতে একাধিক চুরি, ডাকাতি ও ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার লালপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৭! কেরাণীগঞ্জ এলাকায় অনুমোদনহীন ভেজাল খাবার উৎপাদন, মজুদ ও বিক্রি করায় ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা সরকারের নির্দেশ উপেক্ষা করে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ জৈন্তাপুর প্রশাসনের অভিযান ৫০ বস্তা মটরশুটি আটক সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনায় দুই জঙ্গি গ্রেপ্তার রাবিতে নিয়োগ নিয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ রংপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মেরিন একাডেমি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী আসন্ন অর্থ বছরের বাজেটে এমএফএস সার্ভিস চার্জ হাজারে ১০ টাকা করার দাবিসহ ১১ দফা প্রস্তাব উপস্থাপন সুন্দরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাব’র সভাপতি-সম্পাদককে নিয়ে বিভ্রান্তি যাত্রাবাড়ীতে র‌্যাবের অভিযানে মানব পাচারকারী চক্রের ০৩ সদস্য গ্রেফতার পীরগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় স্বামী স্ত্রীসহ একই পরিবারের আহত- ৪ অবশেষে লালপুরে খাস জমিতে খননকৃত পুকুর ভরাট হচ্ছে

পটিয়ার শান্তিরহাটে মাংস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিনব কৌশলে ক্রেতাদের ঠকানোর অভিযোগ

Spread the love

পটিয়ার শান্তিরহাটে মাংস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিনব কৌশলে ক্রেতাদের ঠকানোর অভিযোগ
আবদুল আউয়াল ফরহাদ পটিয়া,চট্টগ্রাম

পটিয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শান্তিরহাট মাংসের জন্য খুবই বিখ্যাত।চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের নিকটবর্তী হওয়ায় পটিয়া ছাড়াও আশেপাশের বিভিন্ন থানা থেকেও মানুষ প্রতিদিন শান্তির হাট থেকে মাংস ক্রয় করতে আসে।এ সুযোগে মাংস বিক্রেতারা ওজনে কম দেয়া,বেশি মূল্য সহ বিভিন্ন উপায়ে ক্রেতাদের ঠকানোর অভিযোগ উঠেছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়,মাংস বিক্রেতারা ওজনে কম দেয়ার জন্য ডিজিটাল স্কেল ব্যবহার না করে মান্দাতা আমলের দাড়িপাল্লাতেই মাংস বিক্রি করে।তাদের এসব দাড়িপাল্লার ওজন পরিমাপ যন্ত্রগুলো কেজিতে ১০০ থেকে ২০০ গ্রাম কম থাকে। ক্রেতাদের বলে মাংস ওজনে বেশি দিয়েছে,অথচ ঐ মাংস ডিজিটাল মেশিনে ওজন করলে দেখা যায় ১০০ থেকে ২০০ গ্রাম কম।তাছাড়া অবিক্রিত মাংস ডিপ ফ্রিজে রেখে তারপরের দিন বিক্রি করে।অনেক সময় ৪/৫ দিন আগের পচাঁ মাংস সদ্য জবাই করা গরুর মাংসের সাথে মিশিয়ে বিক্রি করে।তাছাড়া দোকানের সামনে মূল্য তালিকা টাঙ্গানোর সরকারী নির্দেশনা থাকলেও কোন ব্যবসায়ী তা মানছে না।ফলে ক্রেতাদের কাছে অধিক মূল্যে মাংস বিক্রি করছে ব্যবসায়ীরা।যদি কেউ এর প্রতিবাদ করে তখন এরা তার সাথে খারাপ ব্যবহার করে।শারিরীকভাবে নাজেহাল করে ছাড়ে।
স্থানীয় মাংস ক্রেতা মো: বশির বলেন,আমি তাদের কাছ থেকে মাংস ক্রয় করে বিভিন্ন সময়ে প্রতারিত হয়েছি।এখানে সদ্য জবেহ কৃত গরুর মাংসের সাথে অনেক সময় অবিক্রিত গরুর মাংস মিশিয়ে দেওয়া হয়।অথচ গরু জবেহ করার আগে সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে পশু কর্মকর্তা সীলমোহর দিয়ে বিক্রয়ের বিধান থাকলেও পটিয়ায় তা মানা হচ্ছে না।কবে কোন গরু জবেহ হয়েছে তা না জেনেই ক্রেতাদেরকে মাংস ক্রয় করতে হচ্ছে।
ভুক্তভোগীরা বলেন,সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে নজরদারির বিধান থাকলেও এখানে কখনো কোন কর্মকর্তাকে দেখা যায় না।তারা এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার জন্য পটিয়া উপজেলা প্রসাশনের প্রতি অনুরোধ করেছেন।

Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ