May 18, 2021, 11:07 pm

শিরোনাম :
লিবিয়ায় নৌকাডুবি, ৩৩ বাংলাদেশি জীবিত উদ্ধার সাংবাদিক রোজিনাকে হেনস্তার ঘটনায় তদন্ত কমিটি যশোর ও নড়াইলে আরো তিনজনের নমুনায় ইন্ডিয়ান ভ্যারিয়েন্ট ভারত সরকারকে ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম পাঠালো বাংলাদেশ সরকার র‌্যাব-১০ এর অভিযানে রাজধানী যাত্রাবাড়ী এলাকা হতে ০১টি মটরসাইকেল উদ্ধার জগন্নাথপুরের রাণীগঞ্জ বাজারে নবনির্মিত ড্রেন কাজে আসছে না, জলাবদ্ধতায় জন ভোগান্তি জগন্নাথপুরে নবনির্মিত সড়কে ফাটল, জনমনে ক্ষোভ সড়ক দূর্ঘটনায় শেরপুর বাঘেরচরের একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু নিউইয়র্কে নবীগঞ্জের কৃতি সন্তান পুলিশ সুপার আব্দুল ওয়াহাব কে সংবর্ধনা বিপুল পরিমান চোলাই মদসহ দুই নারী আটক শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলাতে যুবকের লাশ উদ্ধার জামায়াত নেতা শাহজাহান গ্রেফতার অবৈধ পথে ভারত থেকে দেশে ২৭ জন, ৩ জনের করোনা এবার ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ গাজার পর পশ্চিম তীরেও ইসরায়েলের হামলা, মৃত্যু বেড়ে ১৩২ কঠোর বিধিনিষেধ আরো ৭ দিন বাড়িয়ে আগামীকাল প্রজ্ঞাপন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে: চিকিৎসক ঢাকায় পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ ঈদের দিনে মৃত্যু কমলো, ২৪ ঘণ্টায় ২৬ আজ উদযাপিত হল পবিত্র ঈদ-ঊল-ফিতর

চিলমারীতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ

Spread the love

চিলমারী (কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃঃ

 

সারা দেশে উন্নয়নের  ধারা এগিয়ে গেলেও এগিয়ে যায়নি চিলমারীর উন্নয়ন । বন্যাসহ নানা দুর্যোগে উন্নয়নের চাকা আটকে যাওয়ার সঙ্গে প্রায় দেড় বছর ধরে রাজারঘাট ব্রিজটি পরিণত হয়েছে মৃত্যুকূপে। দিনের পর দিন মাসের পর মাস  ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে হাজার হাজার  মানুষ। প্রায়ই শিকার হচ্ছে  নানা রকম দুর্ঘটনার,  দুর্ভোগে চরমে এলাকাবাসী। নজর নেই কর্তৃপক্ষের।
জানা গেছে, কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলা সদর থেকে রানীগঞ্জ যাওয়ার, প্রধান সড়কে অবস্থিত রাজার ঘাট এলাকার রাজারঘাট ব্রিজটি। বুড়ি তিস্তার উপর নির্মিত ব্রিজটির দু’পাশে গাইডওয়াল না থাকায়। গত বছরে বন্যার পানির তোড়ে ব্রিজের দু’পাশের মাটি ধসে রাস্তা ভেঙে যায় এবং যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। এ সময় এলাকাবাসী বাঁশের চাটাই দিয়ে মানুষজনের চলাচলের ব্যবস্থা করে দেন।পরে প্রশাসনের সহযোগিতায় এলাকাবাসীর উদ্যোগে বস্তা ফেলে মাটি ভরাট করে চলাচলের ব্যবস্থা করা হলেও ব্রিজটির দু’পাশে ছিল মৃত্যু ফাঁদ। প্রায় দেড় বছরেও মেরামতের কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় চলতি বন্যা ও টানা বৃষ্টিতে আবারো দু’পাশের মাটি ধসে ব্রিজটি মৃত্যুফাঁদে পরিণত হওয়ায় বিপাকে জনসাধারণ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে ছোট ছোট যানবাহন ও মানুষজন। ‘ব্রিজের কাছে এলেই বড় ডর করে’ মন্তব্য করে ব্যাপারীবাজার এলাকার বাবু, জসিম বলেন এই রাস্তা দিয়ে হাজার হাজার মানুষ রানীগঞ্জ বাজারসহ উলিপুর যাতায়াত করে কিন্তু এই ব্রিজের সামনে এলেই শরীরের লোম খাড়া হয়ে যায় আর মনে হয় এই বুঝি পড়ে গেলাম। এলাকার মাহমুদুল বলেন, ব্রিজটি ১ বছরের বেশি সময় ধরে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকলেও সঠিক পদক্ষেপ না নেয়ায় দিন দিন ঝুঁকি বাড়ছে। তিনি আরো জানান, এ ছাড়াও প্রায় দিন ঘটছে নানান দুর্ঘটনা। ব্রিজটি ঝুঁকিপূর্ণ ও মৃত্যুফাঁদ স্বীকার করে রানীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ব্রিজটি দেড় বছরেও ভালো না করায় উক্ত রাস্তা দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অটো, নছিমন চলাচল করতে গিয়ে প্রায় সময় ঘটছে দুর্ঘটনা। তিনি আরো জানান, দায়িত্বরতদের সঙ্গে বারবার যোগাযোগ করা হলেও ফল পাওয়া যাচ্ছে না। উপজেলা প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি নতুন এসেছি, বিষয়টি আমার জানা নেই। দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ্‌ বলেন, এর আগে কিছু বস্তা দেয়া হয়েছিল এবং এর দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে।
Facebook Comments Box
Share Button

      এ ক্যাটাগরীর আরও সংবাদ